বাগেরহাটে ক্যানেলের দুই তীরের ১০৩ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
বাগেরহাটে ক্যানেলের দুই তীরের ১০৩ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

বাগেরহাটে ক্যানেলের দুই তীরের ১০৩ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট

বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলা সদরে হক ক্যানেলের দুই তীরের ১০৩টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। সোমবার দুপুরে চিতলমারীরর বেয়ালিয়া ভ্যানস্টান্ড থেকে নদীর দুই পাড়ের চিহ্নিত এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু হয়। উচ্ছেদ অভিযানের প্রথম দিনে দুটি ভেকু দিয়ে মিল কল কারখানা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বহুতল আবাসিক ভবনসহ প্রায় অর্ধশত অবৈধ স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।

বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী প্রকৌশলী মাসুম বিল্লার নেতৃত্বে এই উচ্ছেদ চলাকালে চিতলমারী উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা সৈয়েদা ফয়জুননেছা, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রাসেদুজ্জামান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) জান্নাতুল আফরোজ স্বর্ণা, চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামানসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা ও বিপুল সংখ্যক পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুম বিল্লাহ জানান, চিতলমারী সদরের সাথে সহজে নৌ-যোগাযোগ ও সেচ সুবিধার জন্য পঞ্চাশের দশকে যুক্তফ্রন্ট সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের নামে প্রায় ১২ কিলোমিটার দৈর্ঘের ও ১২০ মিটার প্রশস্ত এই হক ক্যানেল খনন করা হয়। দখল ও দূষণে মরতে বসা এই হক ক্যানেলটি সচল রাখতে পানি উন্নয়ন বোর্ড এটি খনন শুরু করেছে। এ কারণে দুই তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করছে।

তিনদিনের মধ্যে দুই তীরের ১০৩টি অবৈধ স্থাপনার সবগুলোই উচ্ছেদ করা হবে হবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

news24bd.tv তৌহিদ

;