পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যা!
পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যা!

সংগৃহীত ছবি

পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যা!

সাব্বির ও অনামিকা চার বছর পুর্বে ভালোবেসে বিয়ে করেন। কিন্তু বিয়ের পর সেই ভালোবাসা অল্পদিনেই দাম্পত্য কলহে রুপ নেয়। দাম্পত্য কলহের জেরে অনামিকাকে তার স্বামী পিটিয়ে হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন স্বজনেরা। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন তিনি।

সাব্বিরের গ্রামের বাড়ি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের ইকুরিয়া এলাকায়। বিয়ের পর অনামিকাকে নিয়ে ইকুরিয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন তিনি।

জানা যায়, শনিবার (২৬ মার্চ) রাতে গুরুতর আহত অবস্থায় অনামিকা বেগমকে (২১) রাজধানীর পান্থপথের নিউ লাইফ নামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বামী সাব্বির আহমেদ (২৫)। রোববার (২৭ মার্চ) সকাল ৯টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহতের ভাই অনিক হাসান জানান, শনিবার রাতে তার বোন জামাই সাব্বির আহমেদ ফোন করে জানান, মারধর করায় অনামিকা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। পরে তাকে রাজধানীর ধানমন্ডির ন্যাশনাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ খবর পাওয়ার পর রোববার সকাল থেকে রাত আটটা পর্যন্ত ধানমন্ডির বিভিন্ন হাসপাতালে খোঁজ করেন অনেক। অনেক খোঁজাখুঁজির পর পান্থপথের নিউ লাইফ নামের একটি হাসপাতালে অনামিকার খোঁজ মেলে। কিন্তু ততক্ষণে তাকে জীবিত পাওয়া যায়নি।

অনিক আরও জানান, ওই হাসপাতালে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানান, অনামিকা রোববার সকাল ৯টার দিকে মারা যান। এছাড়া অনামিকার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।  

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমরা সাব্বিরকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। এঘটনায়  মামলা করতে চাইলে তা নেওয়া হবে।  

news24bd.tv/আলী

;