‘প্রয়োজনে বাবার মতো জীবন দিতেও সঙ্কোচবোধ করব না’
‘প্রয়োজনে বাবার মতো জীবন দিতেও সঙ্কোচবোধ করব না’

‘প্রয়োজনে বাবার মতো জীবন দিতেও সঙ্কোচবোধ করব না’

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে। এই দেশকে আর কেউ পেছনে টানতে পারবে না। দেশ ও মানুষের জন্য প্রয়োজনে বাবার মতো জীবন দিতেও সঙ্কোচবোধ করব না।

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) রাত আটটায় ‘উন্নয়নের নতুন জোয়ার বদলে যাওয়া কক্সবাজার’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি তিনি অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

এ সময় চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় ‘তোয়ারার লাই আঁর পেট পুরে’ বলে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর মুখে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষা শুনে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন কক্সবাজারের মানুষ।

সরকারপ্রধান বলেন, আমি কক্সবাজারবাসী এবং সমগ্র বাংলাদেশের জনগণের কাছে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন করতে প্রয়োজনে আমি আমার বাবার মতো জীবন উৎসর্গ করব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সব বাধা অতিক্রম করে দেশবাসীর জন্য একটি সুন্দর ও উন্নত জীবনের ব্যবস্থা করে যাব।  

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছোটবেলা থেকে কক্সবাজারে যাওয়ার প্রচুর ইচ্ছা ছিল আমাদের। তাই আমার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সময় পেলে আমাদের কক্সবাজারে নিয়ে যেতেন। বঙ্গবন্ধু বেশিরভাগ সময় জেলে থাকতেন। তাই জেল থেকে ছাড়া পেলে আমাদের কক্সবাজারে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতেন। আমরা বাবার কাছে বায়না ধরতাম।

কক্সবাজারকে আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক এলাকা হিসেবে গড়ে তোলার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, কক্সবাজারে এক্সক্লুসিভ পর্যটন এলাকা, স্টেডিয়াম, আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, মেডিক্যাল কলেজ, রেললাইন থেকে শুরু করে ব্যাপক উন্নয়ন চলছে।

শেখ হাসিনা বলেন, আজ আমরা উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেয়েছি। নির্বাচনি ইশতেহারে দেওয়া অঙ্গীকার আমরা রক্ষা করেছি। শতভাগ বিদ্যুতের ব্যবস্থা করেছি। আজ বাংলাদেশের মানুষ ডিজিটাল দেশের সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছেন। বর্তমান সরকার সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে। তাই সাধারণ মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। এদেশের মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছি।

সকাল থেকে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতের লাবণী পয়েন্টে ‘উন্নয়নের নতুন জোয়ারে বদলে যাওয়া কক্সবাজার’ স্লোগানে এই উৎসব শুরু হয়। রাতে আনুষ্ঠানিকভাবে উৎসব উদযাপনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।  

কক্সবাজার জেলা শিল্পকলা একাডেমির শিশু শিল্পীদের পরিবেশনায় বেজে উঠে জাতীয় সংগীত। এরপর ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত হয় আশপাশ।

news24bd.tv/ তৌহিদ

;