ধর্ষণ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কারাগারে
ধর্ষণ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কারাগারে

সংগৃহীত ছবি

ধর্ষণ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কারাগারে

বাগেরহাট প্রতিনিধি    

বাগেরহাটে এক গৃহবধূ ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতারকৃত রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (এপিপি) ফকির ইফতেখারুল ইসলাম রানাকে শনিবার দুপুরে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। বাগেরহাট শহরের বাসাবাটি এলাকার ওই গৃহবধূ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বাগেরহাট সদর মডেল থানায় শুক্রবার দুপুরে ওই আইনজীবীর বিরুদ্ধে মামলা করেন। বিকালে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই গৃহবধূ ২২ ধারায় জবানবন্দি দেন। ইফতেখারুল ইসলাম রানা জেলা জজ আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (এপিপি) এবং জেলা তাঁতীলীগের সদস্য সচিব।

বাগেরহাট সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম আজিজুল ইসলাম জানান, ২০১৮ সালে ওই গৃহবধূ পারিবারিক আদালতে একটি মামলা করেন। ওই মামলাটি পরিচালনা করতে ফকির ইফতেখারুল ইসলাম রানাকে আইনজীবী হিসেবে নিয়োগ দেন তিনি। এরপর থেকে বিভিন্ন সময়ে মামলার কাজে গৃহবধূকে ওই আইনজীবীর চেম্বারে আসা যাওয়া করতে হতো। এক পর্যায়ে ইফতেখারুল গৃহবধূকে খারাপ প্রস্তাব দেন।

এতে তিনি রাজি না হওয়ায় ইফতেখারুল মামলাটি চালাতে অনীহা প্রকাশ করেন এবং মামলায় তাকে হারিয়ে দেওয়ারও ভয় দেখান। চলতি বছরের ২৯ জানুয়ারি বিকালে ফোন করে ওই নারীকে ইফতেখারুল বাড়িতে ডেকে নেন এবং স্ত্রী না থাকার সুযোগে তাকে ধর্ষণ করেন। এ সময় ইফতেখারুল গোপন ক্যামেরায় ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করেন।  

এঘটনায় ওই গৃহবধূ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বাগেরহাট সদর মডেল থানায় শুক্রবার দুপুরে ইফতেখারুল ইসলাম রানা’র বিরুদ্ধে মামলা করেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় শহরের খারদ্বার মল্লিকবাড়ির মোড়ে নিজ বাড়ি থেকে ফকির ইফতেখারুল ইসলাম রানাকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার আদালতে পাঠালে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন।  

বাগেরহাট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ড. এ কে আজাদ ফিরোজ টিপু বলেন, ফকির ইফতেখারুল ইসলাম রানা জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ও রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি)। নারী নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার হয়েছে। তবে তিনি কোন ষড়যন্ত্রের শিকার কিনা তা আমরা খতিয়ে দেখছি।

news24bd.tv/আলী