১ কেজি চাল কিনতে ৪ কেজি পেঁয়াজ বিক্রি!

১ কেজি চাল কিনতে ৪ কেজি পেঁয়াজ বিক্রি!

জাহিদুজ্জামান

কুষ্টিয়ায় পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষক প্রতি বিঘা জমি থেকে তুলছেন ৭০ থেকে ৮০ মণ পেঁয়াজ। কিন্তু এ সাফল্যেও হাসি নেই তাদের মুখে। বাম্পার ফলনের চাপে চড়া দামের পেঁয়াজের দর নেমে এসেছে কেজিতে ১৫ থেকে ১৭ টাকায়।

এখন ১ কেজি চাল কিনতে কৃষকের বেঁচতে হচ্ছে ৪ কেজি পেঁয়াজ। মৌসুম শেষেই আবার চড়া দামে কৃষককেই কিনে খেতে হবে তারই উৎপাদিত পণ্য।  

পেঁয়াজের সংকট ও বাজারের অস্থিরতা কাটাতে সরকারই কৃষকদের এ চাষে উৎসাহী করেছে। কৃষি সম্প্রসারণের সহযোগিতায় সাফল্যও দেখিয়েছেন তারা।

কুষ্টিয়ায় বিভিন্ন মাঠে এখন তাদের পেঁয়াজ তোলার ব্যস্ততা। প্রতিবিঘায় কৃষক মোটা মোটা পেঁয়াজ তুলছেন ৭০-৮০ মণ করে। কিন্তু চড়া দামের পেঁয়াজের বাজার হঠাৎ করেই পড়ে গেল। প্রতিকেজি পেঁয়াজ উৎপাদনে কৃষকের খরচ যেখানে ৩০ টাকার কাছে, সেখানে দাম পাচ্ছেন মাত্র ১৫ থেকে ১৭ টাকা।

আর্থিক অবস্থা মজবুত না হওয়াসহ নানা কারণে কৃষকদের মৌসুমেই ফসল বিক্রি করতে হয়। এই সুযোগই নিয়ে থাকেন ফড়িয়া ব্যবসায়ী ও মজুদদাররা। সারাবছরই ঠকতে থাকেন কৃষক।

যে ৫টি জেলায় বেশি পেঁয়াজ উৎপাদন হয় তার একটি কুষ্টিয়া। এবার চাষ হয়েছে ১৩ হাজার ৭শ ৩৫ হেক্টর জমিতে। ভাল ফলনের কারণে এবার পেঁয়াজ সংকট হবে না- আশা কৃষি কর্মকর্তাদের। কুষ্টিয়ার পোড়াদহের কামারডাঙ্গার মতো অনেক গ্রামেই বাড়ির আঙিনাজুড়ে এখন পেঁয়াজের গাদা।

news24bd.tv/আলী