শেষ রক্ষা হবে কি ইমরান খানের?

শেষ রক্ষা হবে কি ইমরান খানের?

মাসুদ রানা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে বিরোধীদের অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ হয়ে যাওয়ার পর, রাজনৈতিক সংকটের বিষয়টিকে এবার আমলে নিয়েছে দেশটির উচ্চ আদালত। বিরোধীরা বলছেন, বর্তমান পরিস্থিতির শেষ দেখে ছাড়বেন তাঁরা। এমন পরিস্থিতিতে একদিকে যেমন রাজপথে উত্তাপ ছড়াতে পারে, তেমনি আইনি লড়াইয়ে দেশের জন্য বয়ে আসতে পারে অনাকাঙ্ক্ষিত ফল। এমনকি মূল দৃশ্যপটে আসতে পারে দেশটির সেনাবাহিনী।

 

বিরোধীদের অনাস্থা প্রস্তাব এড়াতে নাটকীয় এক পদক্ষেপে প্রেসিডেন্টকে দিয়ে পার্লামেন্ট বিলোপ করে অসম্মানজনক বিদায় এড়ীয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে, কেননা পাকিস্তানের সর্বোচ্চ আদালত বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করেছে।  

সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি জানিয়েছেন,প্রেসিডেন্ট পার্লামেন্ট ভেঙ্গে দেওয়ার বিষয়ে যে আদেশ ও পদক্ষেপ নিয়েছেন সেগুলো এখন সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের বিষয়। যদিও পার্লামেন্টের রায়ে সুপ্রিম কোর্টের কোন এখতিয়ার নেই বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির তথ্যমন্ত্রী।

 

তথ্যমন্ত্রী  বলেন, অনুচ্ছেদ ৬৯ অনুসারে, সংসদের রায়ের বিচার করার অধিকার সুপ্রিম কোর্টের নেই, এটি সম্পূর্ণরূপে স্পিকারের অধিকার।

অনাস্থা ভোটের প্রস্তাব খারিজের সিদ্ধান্তকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ হয়েছে বিরোধিরা। সেইসাথে তারা পাকিস্তানের তিন বারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাই শেহবাজ শরিফকে নতুন প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছে।  

এদিকে ন্যশনাল অ্যাসেম্বলি ভেঙ্গে যাওয়ায় ইমরান খান আর পাক প্রধানমন্ত্রী নন বলে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ক্যাবিনেট সচিবালয়।  

বর্তমান পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনীর ভূমিকায় পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল বাবর ইফতেখার জানিয়েছেন, রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় সেনাবাহিনীর কিছু করার নেই। যদিও পাক জেনারেলরা নানা অসিলায় দেশের শাসনভার হাতে নিয়েছেন বিভিন্ন সময়। এ উদাহরণ টেনে বিশ্লেষকদের একটা অংশ বলছে, এবারও তেমন পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তির আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

news24bd.tv/আলী