করোনা সংক্রমণ কমছেনা, সপ্তাহজুড়ে লকডাউন চলছে সাংহাইয়ে
করোনা সংক্রমণ কমছেনা, সপ্তাহজুড়ে লকডাউন চলছে সাংহাইয়ে

সংগৃহীত ছবি

করোনা সংক্রমণ কমছেনা, সপ্তাহজুড়ে লকডাউন চলছে সাংহাইয়ে

অনলাইন ডেস্ক

গোটা বিশ্ব যখন করোনার দুঃস্বপ্ন ভুলে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে শুরু করছে, ঠিক তখন চীনের বাণিজ্যিক রাজধানী সাংহাইয়ে এক সপ্তাহ ধরে চলছে লকডাউন। ওমিক্রনের পরবর্তী ভ্যারিয়েন্টের প্রভাবে সেখানকার মানুষ এখন ঘরবন্দি জীবন অতিবাহিত করছে। বৃহস্পতিবারও সাংহাইয়ে ২১ হাজারের বেশি করোনা আক্রান্ত মানুষের সন্ধান পাওয়া গেছে।  

জানা গেছে, বর্তমানে চীনে ওমিক্রনের ছোবল এতই ছোঁয়াচে যে, বাড়িতে বয়স্ক কেউ আক্রান্ত হলেই তা বাড়ির অন্যদেরও সংক্রমিত করছে।

ফলে লকডাউন করেও সেই অর্থে সংক্রমণে লাগাম পরানো যাচ্ছে না। স্বভাবতই প্রশ্নের মুখে পড়েছে শি-র ‘কোভিড জিরো’  নীতি। এ নিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশগুলো কিছুটা চিন্তিত।  কিন্তু এতদিন পর করোনার কারনে এভাবে আবারও কেন লকডাউন এবং এই লকডাউন কতোদিন চলবে-এসব বিষয় নিয়ে সাধারণ মানুষের উৎকন্ঠা থাকলেও চীনা কর্তৃপক্ষের কাছে সে প্রশ্নের উত্তর নেই। যদিও চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ‘কোভিড জিরো’ নীতিরই প্রশংসায় পঞ্চমুখ সে দেশের সংবাদমাধ্যম।

করোনা অতিমারি শুরুর পর, বিশ্বের বেশির ভাগ দেশে লকডাউন জারি হয়েছিল। কিন্তু অতিমারি শুরুর দু’বছর পেরিয়ে গেলেও দেখা যাচ্ছে, লকডাউন করেও পুরোপুরি সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রোখা তো যায়ইনি, উল্টে অর্থনীতির ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক। ফলে এ প্রক্রিয়া থেকে বের হয়ে এসেছিলো বিশ্ব।  অপরদিকে টিকা আবিষ্কারের পর বিশ্বের অধিকাংশ দেশ দ্রুত টিকাকরণ অভিযান চালিয়ে লকডাউন থেকে বেরিয়ে আসতে পেরেছে।

কিন্তু হঠাৎ চীন কেন উল্টো পথে হাঁটছে? সেখানে শুরু থেকেই সরকার ‘কোভিড জিরো’ নীতিতে চলছে যে নীতিতে লকডাউন অপরিহার্য। কিন্তু উহান থেকে করোনা সংক্রমণ সাংহাইয়ে সরে আসার পর লকডাউনের অনিবার্য প্রভাব দেখা যাচ্ছে চীনের অর্থনীতিতেও। এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে সাংহাইয়ে চলছে লকডাউন। এর ফলে এক দিকে থমকে গেছে দৈনন্দিন কাজকর্ম, অন্য দিকে বাড়ছে মানুষের অসন্তোষ; প্রভাবিত হচ্ছে অর্থনীতি।  এদিকে সাংহাইয়ের বাসিন্দাদের একটি অংশ কড়া লকডাউন তুলে দিয়ে টিকাকরণে জোর দেবার পক্ষে। কেননা চীন নিজে সেদেশে টিকা তৈরি করছে।  

news24bd.tv/arkabul