ইফতার করুন সহজপাচ্য খাবার দিয়ে
ইফতার করুন সহজপাচ্য খাবার দিয়ে

ইফতার করুন সহজপাচ্য খাবার দিয়ে

চৌধুরী তাসনিম হাসিন

ইফতারকে আমরা কয়েক ভাগে ভাগ করে নিতে পারি। শুধু রোজার সময় নয়, যেকোনো সময় খুব দ্রুত গতিতে অতিরিক্ত খাবার খেলে নানা শারীরিক জটিলতা হতে পারে। এতে ডাইজেস্টিভ সিস্টেম বা মেটাবলিজম সবকিছুর ওপর প্রভাব পড়ে।  

ইফতার খাবেন হিসেব করে
সারা দিন একটানা না খেয়ে থাকার পর কোন খাবার হঠাৎ করে খেতে গেলে বা ইফতার করতে গেলে একটু হিসেব করেই খেতে হবে।

 
ইফতার শুরু করতে হবে একটু সহজপাচ্য খাবার দিয়ে। সেটা হতে পারে চিড়া, দই এরকম কিছু দিয়ে। সাথে পান করবেন সাধারণ পানীয় বা তাঁজা ফলের রস। সরাসরি কড়া চিনি যুক্ত খাবার বর্জন করাই ভালো। এটা শুধু ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য নয়, অন্য সবার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য।

কড়া চিনিযুক্ত খাবারের পরিবর্তে ইফতারিতে খাওয়া যেতে পারে কোন ফলের শরবত, একটু দুধের ঘোল বা দইয়ের শরবত। এটুকু খেয়ে মাগরিব নামাজ পড়ে ধীরেসুস্থে পরবর্তীতে আরো কিছু খাবার খাওয়া যেতে পারে।

নামাজের পর বা আধাঘন্টা ব্রেক দিয়ে বাকি ইফতার কমপ্লিট করা ভালো। ঠিক এভাবে তারাবির নামাজের পর কিছুটা ব্রেক দিয়ে একটা ছোট ডিনার সেরে ফেলা ভালো। এভাবে খাবারটাকে কয়েকভাগে ভাগ করে দিলে ডাইজেস্টিভ প্রেসার থেকে মুক্ত থাকা যাবে। তবে মাগরিব থেকে সেহরি পর্যন্ত যা খাবেন তাতে ব্যালেন্স ডায়েট যুক্ত করা জরুরি।

পরামর্শদাতা : প্রধান পুষ্টিবিদ, ইউনাইটেড হসপিটাল লিমিটেড

ews24bd.tv/arkabul