রমজানে বাঙ্গির দাম পেয়ে খুশি নাটোরের চাষীরা
রমজানে বাঙ্গির দাম পেয়ে খুশি নাটোরের চাষীরা

সংগৃহীত ছবি

রমজানে বাঙ্গির দাম পেয়ে খুশি নাটোরের চাষীরা

নাটোর প্রতিনিধি

রমজান মাস লক্ষ্য করে বাঙ্গি চাষ করে লাভের মুখ দেখছেন নাটোরের চাষীরা। জমি থেকেই প্রতিটি বাঙ্গি বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকায়। এতে খরচ উঠিয়ে ভালো লাভের আশা বাঙ্গিচাষীদের।  

নাটোর সদর উপজেলার পূর্ব হাগুরিয়া এলাকার গৃহিণী খদেজা বেগম।

বাড়ির পাশে ৮ শতাংশ জমিতে এবার চাষ করেছেন বাঙ্গি। নিজেই আগাছা দমন, পরিচর্যাসহ গাছের যত্ন নেন। তার ৮ শতাংশ জমি থেকে এরই মধ্যে  তুলতে শুরু করেছেন বাঙ্গি। প্রতিটি বাঙ্গির ওজন এক থেকে দেড় কেজি।  খদেজা বেগম বলেন, রমজান মাসে বাঙ্গির চাহিদা বেড়ে যায়। চাহিদার কারণে দামও ভালো পাওয়া যায়। যে কারণে রমজান মাস লক্ষ্য করে বাঙ্গি চাষ করা হয়। এবারো বাঙ্গির বাম্পার ফলন হওয়ার কারণে আমি আট শতক জমি থেকে ৮-১০ হাজার টাকার বাঙ্গি বিক্রি করতে পারবো আশা করছি।

নাটোর সদর উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, বাঙ্গি পেতে সাধারণত সময় লাগে দুই থেকে আড়াই মাস। রমজান মাসে চাহিদা বেড়ে যায় এ ফলের। দামও পাওয়া যায় ভালো। তাই রমজান মাসকে কেন্দ্র করে বাঙ্গি চাষ করেন এখানকার কৃষকরা। বর্তমানে জমি থেকেই প্রতিটি বাঙ্গি বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা।  পূর্ব হাগুরিয়া এলাকার বাঙ্গিচাষী আবুল কালাম বলেন, বাঙ্গি চাষে উৎপাদন খরচ উঠিয়ে লাভবান হচ্ছেন চাষীরা। আগামী সাতদিনের মধ্যে পুরোপুরি বাঙ্গি বাজারে উঠবে। তখন অবশ্য দাম কিছুটা কম হবে।

নাটোর সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মেহেদুল ইসলাম বলেন, এ বছর নাটোর সদরে ২৩ হেক্টর জমিতে বাঙ্গির চাষ হয়েছে। এতে ৫৭৫ টন বাঙ্গি উৎপাদন হবে বলে আশা স্থানীয় কৃষি বিভাগের। ভালো মানের বাঙ্গি উৎপাদন করতে কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে বিভিন্ন পরামর্শ দেয়া হয়েছে।  তিনি আরো বলেন, গত দুই বছর বাঙ্গির সঠিক দাম পাচ্ছেন চাষীরা।  যে কারণে রমজান মাসকে কেন্দ্র করে বাঙ্গি চাষ বাড়ছে।  আগামীতে আরো বাড়বে।

news24bd.tv/arkabul