১৫০ টাকায় পুলিশে নিয়োগ পেলেন ৭২ জন

১৫০ টাকায় পুলিশে নিয়োগ পেলেন ৭২ জন

কাজী শাহেদ

ময়নুর রিকশা চালিয়ে সংসারের হাল ধরেছেন। লিজাকে বিষ দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছিলেন বাবা। স্রোতের বিপরীতে লড়াই করে জীবন যুদ্ধে এগিয়ে যাওয়া এই দুই উদ্যোমী এবার নিয়োগ পেয়েছেন পুলিশে। দীর্ঘদিনের তদবির আর নিয়োগ বাণিজ্যের বদনাম সরিয়ে ১৫০ টাকায় নিয়োগ পেয়েছে ৭২ জন।

নিয়োগে নানা অনিয়ম দূর হওয়ায় সাধারণ অস্বচ্ছল পরিবারের মেধাবীরা বেশি সুযোগ পাচ্ছে, বলছেন পুলিশ সুপার।  

রাজশাহীর বাগমারার ময়নুর। ২০১৭ সালে বাবার মৃত্যুর পর সংসারের হাল ধরতে মাঠে নামেন। তখন ময়নুর নবম শ্রেণীর ছাত্র। ২০২০ সাল থেকে রিকশা চালাচ্ছেন চট্টগ্রাম শহরে।  

বাঘা উপজেলার লিজার গল্পটা হৃদয় ছোঁয়া। প্রথম সন্তান কন্যা হওয়ায় কিছুতেই মেনে নিতে পারেননি তার পিতা। লিজার বয়স যখন ৯ মাস, তখন মুখে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা করে তার পিতা।  

স্রোতের প্রতিকূলে লড়াই করে এবার তারা চাকরি পেয়েছে পুলিশে। চূড়ান্ত মনোনয়নের পর তাই তাদের চোখের কোনে জল। বেশির ভাগ তরুণ-তরুণীর গল্প প্রায় একই। এমন অবস্থায় কোন ধরনের তদবির ছাড়াই যোগ্যতায় পুলিশের চাকরি পেয়ে আত্মহারা তারা।

পুলিশ ও পুলিশের নিয়োগ নিয়ে অনেকের মনেই বিরূপ ধারনা আছে। এই নিয়োগ সেটি দূর করার পাশাপাশি দেশের মানুষ আগামীতে সেবা পাবেন, বলছেন পুলিশ সুপার। রাজশাহী জেলা পুলিশে কনস্টেবল পদে আবেদন করা ১০ হাজার প্রার্থীর মধ্যে যোগ্যতার বিবেচনায় সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া ৭২ জনকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

;