সাত পাক নয়, চার পাক ঘুরে বিয়ে করেন রণবীর-আলিয়া
সাত পাক নয়, চার পাক ঘুরে বিয়ে করেন রণবীর-আলিয়া

সাত পাক নয়, চার পাক ঘুরে বিয়ে করেন রণবীর-আলিয়া

অনলাইন ডেস্ক

বলিউডের আলোচিত জুটি রণবীর কাপুর ও আলিয়া ভাট। অনেক দিন থেকে কানাঘুষা চলতে চলতে অবশেষে বিয়েটা সেরেই ফেললেন এ জুটি। ঘনিষ্ঠজনদের নিয়ে বান্দ্রার ‘বাস্তু’ আবাসনে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন এই জুটি। বৃহস্পতিবার মুম্বাইতে রণবীর কাপুরের সঙ্গে বিয়ের জন্য আলিয়া ভাটের গয়না কাস্টমাইজ করা হয়।

আলিয়া সব্যসাচীর ডিজাইন করা একটি অর্গানজা শাড়ি পরেন। তার সঙ্গে ছিল ডিজাইনারের বিখ্যাত হেরিটেজ জুয়েলারি কালেকশন। এগুলো তৈরি হয় আনকাট হীরে এবং সোনা দিয়ে। তার মঙ্গলসূত্র এবং কালিরে উভয়ের সঙ্গেই রয়েছে রণবীর কাপুরের যোগ।

ভারতীয় গণমাধ্যম জি নিউজ জানায়, বিয়ের অন্য সব প্রথা মানলেও সাত পাক নাকি ঘোরেননি রণবীর-আলিয়া। চার পাক ঘুরে জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করেছেন তারা। তবে এতে কোনো নিয়ম ভঙ্গ করেননি নবদম্পতি। বরং নিয়ম মানতেই নাকি এটি করতে হয়েছে তাদের। বিয়ের সময় বর-কনের পাশেই ছিলেন রাহুল ভাট। আলিয়ার ভাই হিসেবে সব কর্তব্যই নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করেছেন বলে জানান তিনি।

রাহুল ভাট বলেছেন, ‘মজার বিষয় হলো রণবীর-আলিয়া সাত পাক ঘোরেনি। চার পাক ঘুরেছে। কাপুর পরিবারের পক্ষ থেকে আলাদা করে একজন পুরোহিতকে নিয়ে আসা হয়েছিল। রণবীরদের পরিবারের সঙ্গে তার বহু বছরের সম্পর্ক। তিনি আমাদের প্রত্যেকটি পাকের গুরুত্ব বুঝিয়ে দিচ্ছিলেন। ’

সাত পাক না ঘোরার বিষয়টিতে তিনি বিস্মিত হয়েছেন বলেন জানান রাহুল। তবে পুরো বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘পুরোহিত মশাই জানান, একটি পাক নেওয়া হয় ধর্মের জন্য। অন্যটি নেওয়া হয় সন্তান কামনা করে। এভাবেই পুরো বিষয়টি সম্পন্ন হয়। আমরা এই নিয়ম আগে জানতাম না। আমাদের পরিবারে বিভিন্ন সংস্কৃতির মানুষ রয়েছে। সাতের বদলে চার পাক দেখে সত্যিই খুব বিস্মিত হয়েছিলাম। ’

প্রায় পাঁচ বছর প্রেমের সম্পর্কে থাকার পর বিয়ে করেছেন রণবীর ও আলিয়া। বিয়েতে প্রখ্যাত ডিজাইনার সব্যসাচী মুখার্জির তৈরি করা লেহেঙ্গা পরেছিলেন আলিয়া। সঙ্গে ছিল গা ভর্তি গহনা। অন্যদিকে, রণবীর পরেছিলেন শেরওয়ানি। বিয়ের মণ্ডপে ছিল ঋষি কাপুরের ছবি। বাবাকে সাক্ষী রেখেই জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করেন রণবীর কাপুর।

news24bd.tv তৌহিদ

;