পটুয়াখালীতে ব্যবসায়ী শিবু অপহরণের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৬
পটুয়াখালীতে ব্যবসায়ী শিবু অপহরণের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৬

সংগৃহীত ছবি

পটুয়াখালীতে ব্যবসায়ী শিবু অপহরণের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৬

পটুয়াখালী প্রতিনিধি :

পটুয়াখালীর বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শিবু লাল দাস ও তার ব্যাক্তিগত গাড়ি চালককে অপহেণের পর ২০ কোটি টাকা মুক্তিপন দাবির ঘটনায় জড়িত পটুয়াখালী জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আতিকুর রহমান পারভেজসহ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ রোববার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের হলরুমে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ ঘটনার মূল হোতা মো. মামুন ওরফে ল্যাড়া মামুনসহ তিন জন মূল পরিকল্পনাকারীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ ঘটনার অভিযানে থেকে ভিডিও কন্ফারেন্সে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে ব্রিফিং করেন।

অপরপ্রান্তে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের হলরুমে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মাঈনুল হাসান সাংবাদিকদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন।  

আসামিরা হলেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আতিকুর রহমান পারভেজ, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আক্তারুজ্জামান সুমন, তার ভাই ছাত্রলীগ কর্মী শামিম আহমেদ, মো. মিজানুর রহমান সাবু গাজী, মো. বিল্লাল ও সাব্বির হোসেন জুম্মান। এরা সকলেই পটুয়াখালীর শহরের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা।

প্রেস ব্রিফিংয়ে বলা হয়, গত ১১ এপ্রিল রাতে শহরের নিজ বাসায় যাওয়ার সময় গলাচিপা উপজেলার হরিদেবপুর-শাখারিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের যেকোনো স্থান থেকে শিবু লাল দাস ও তার গাড়ির চালক অপহরণ হন।

রাত ১২টা ২ মিনিট ও ১টা ৫৯ মিনিটের সময় ভিকটিমের মোবাইল থেকে তার স্ত্রীর ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে কল করে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি জানায়, ভিকটিম তাদের নিকট আটক আছে। ১২ এপ্রিল দুপুর ২টার মধ্যে ২০ কোটি টাকা মুক্তিপণ দিলে ভিকটিমকে তারা জীবিত তাদের কাছে ফেরত দেবে, নতুবা তাদের লাশ পাবেন।  

পরে পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহর নেতৃত্বে জেলা পুলিশের সব টিম অভিযান পরিচালনা করে শিবু লাল দাসের গাড়িটি একটি পেট্রোল পাম্প থেকে উদ্ধার করে। ২৪ ঘণ্টা পর শহরের এসপি কমপ্লেক্স শপিংমলের আন্ডারগ্রাউন্ড, ল্যাংড়া মামুনের গোডাউন থেকে জীবিত অবস্থায় শিবু লাল দাস ও তার ড্রাইভার মিরাজকে উদ্ধার করা হয়।

ভিকটিমের জবানবন্দির ভিত্তিতে বিভিন্ন এলাকা থেকে আলামতসহ প্রাথমিকভাবে ৬ জন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভিকটিমকে বহন করা ব্যাটারিচালিত অটো রিকশা উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার লিখিত ব্রিফিংয়ে আরও বলেন, এ ঘটনার মূল হোতা মো. মামুন ওরফে ল্যাংড়া মামুনসহ তিন পরিকল্পনাকারী ঘটনার পর দেশের বিভিন্ন স্থানে পলাতক থাকায় ঢাকা মেট্রোপলিটনের ডিবি টিম ও পটুয়াখালীর জেলার একাধিক টিম দেশের বিভিন্ন জায়গায় যৌথ অভিযান পরিচালনা করে অপহরণের কাজে জড়িত সকলকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলমান আছে। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায় ল্যাংড়া মামুনসহ তিনজন অপহরণ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী। শিবু লাল ও তার চালকে অপহরণের পর হাত, পা, মুখ বেধে গাড়িতে উঠিয়ে এসডিও রোডস্থ মামুনের কথিত গোপন আস্তানায় এনে শারিরিকভাবে অত্যাচার করে আটক রাখা হয়।  

শিবু লাল দাস পটুয়াখালী শহরের পুরান বাজার এলাকার বাসিন্দা। তিনি স্কয়ার টয়লেট্রিজ ও স্কয়ার ফুড এন্ড বেভারেজ লিঃ এর পরিবেশক। ঠিকাদারি, ব্রীজের টোল আদায়ের ইজারা, খেয়াঘাট ইজারা, চাউলের আড়ৎসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পরিবেশক ব্যবসা করে আসছিল।

news24bd.tv/কামরুল