হাতিরঝিলে এসে প্রেমিকের আত্মহত্যা, ‘প্রেমিকা’ গ্রেফতার
হাতিরঝিলে এসে প্রেমিকের আত্মহত্যা, ‘প্রেমিকা’ গ্রেফতার

সংগৃহীত ছবি

হাতিরঝিলে এসে প্রেমিকের আত্মহত্যা, ‘প্রেমিকা’ গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

শুক্রবার মধ্যরাতে পাঠাওতে করে রাজধানীর হাতিরঝিলে এসে নামেন বজলু মিরাজ চৌধুরী রাজ। এরপর মানিব্যাগ ও মোবাইল পাঠাও চালকের কাছে দিয়ে ব্রিজ থেকে পানিতে লাফিয়ে আত্মহত্যা করেন। আত্মহত্যার ঘটনায় তার কথিত প্রেমিকা মির্জা আক্তার বর্ষাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  

এ ঘটনায় নিহতের মা নাদিরা বেগম হাতিরঝিল থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে ঐ প্রেমিকার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

রোববার হাতিরঝিল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মেজবা উদ্দীন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, হাতিরঝিলে পানিতে লাফ দিয়ে বজলু মিরাজ চৌধুরী রাজের আত্মহত্যার ঘটনায় তার মা মামলা করেছেন। এ মামলায় তিনি রাজের কথিত প্রেমিকা মির্জা আক্তার বর্ষাকে আসামি করেছেন। মামলায় তার ছেলেকে আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগ করেছেন বাদী। এ অভিযোগের ভিত্তিতে বর্ষাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হাতিরঝিল থানার এসআই মো. কারিবেল হাসান জানান, শুক্রবার মধ্যরাতে পাঠাওতে করে হাতিরঝিল এসে নামেন বজলু মিরাজ চৌধুরী রাজ। এরপর মানিব্যাগ ও মোবাইল পাঠাও চালকের কাছে দিয়ে বলেন তিনি আত্মহত্যা করবেন। এর পরই তিনি পানিতে লাফ দেন। লাফ দেওয়ার আগে প্রেমিকা বর্ষার মোবাইল নম্বর পাঠাও চালককে দেন। তবে লাফ দেওয়ার সময় বর্ষা ঘটনাস্থলে ছিলেন না। পাঠাও চালকসহ ঘটনাস্থলে আরো দুজন ব্যক্তি ছিলেন। তারা ঐ যুবককে বাধা দেন। তবে রাজ জোর করেই পানিতে লাফ দেন।

ঘটনার পর নিহতের মা নাদিরা বেগম বলেন, আমার ছেলের সঙ্গে মির্জা আক্তার বর্ষা নামে এক মেয়ের সম্পর্ক ছিল। মেয়েটি মাদকাসক্ত। আমার ছেলেকে আকাশ ও বর্ষা ডেকে নিয়ে ব্রিজ থেকে ফেলে দিয়ে হত্যা করেছে।  

news24bd.tv/আলী