এবার ইউক্রেনের ক্রিমান্না শহর দখলে নিল রুশ সেনারা
এবার ইউক্রেনের ক্রিমান্না শহর দখলে নিল রুশ সেনারা

ছবি : রয়টার্স

এবার ইউক্রেনের ক্রিমান্না শহর দখলে নিল রুশ সেনারা

অনলাইন ডেস্ক

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পরাশক্তি রাশিয়া। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোর থেকে শুরু হয় এই অভিযান। অভিযানে রাশিয়ার ছোঁড়া বোমা আর রকেটে কেঁপে উঠছে ইউক্রেনের বিভিন্ন শহর। রুশ সেনাদের হামলায় প্রতিদিনই বাড়ছে নিহতের সংখ্যা।

ইতিমধ্যে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি নগরী দখলে নিয়েছে রুশ বাহিনী। এবার উক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় ক্রিমিন্না শহর দখলে নিল রাশিয়ার সেনারা।

গতকাল মঙ্গলবার ইউক্রেনের সেনারা শহরটি ছেড়ে চলে গেলে রুশ সৈন্যরা ক্রিমিন্না দখল করে। দু’দিন আগে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে নতুন করে সামরিক অভিযান শুরু করেছিল রাশিয়ার সেনাবাহিনী।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রাশিয়ার নতুন অভিযান শুরু হওয়ার পর এই প্রথম সেখানকার কোনো শহরের পতন হলো।

ইউক্রেনের লুগানস্ক অঞ্চলের গভর্নর সেরহি গাইদাই বলেছেন, ১৮ হাজার জনসংখ্যা অধ্যুষিত শহর ক্রিমিন্নায় রুশ সেনারা চতুর্মুখী হামলা চালালে শহরটির পতন হয়।

তিনি আরো বলেন, রাজধানী কিয়েভ থেকে ৫৭৪ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত ক্রিমিন্না বর্তমানে রুশ সেনাদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ইউক্রেনের সেনারা কৌশলগত কারণে পিছু হটে গেলেও তারা নিজেদের অবস্থান শক্তিশালী করে পাল্টা হামলা চালাবে বলে ওই গভর্নর ঘোষণা করেন।

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ স্বঘোষিত স্বাধীন প্রজাতন্ত্র দোনেস্ক ও লুগানস্কে নতুন করে অভিযান শুরু করার কথা ঘোষণা করার পর ক্রিমান্না শহরের পতনের খবর এল। রাশিয়া ওই দুই প্রজাতন্ত্রকে ‘স্বাধীন রাষ্ট্র’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

সের্গেই শোইগু  তিনি বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো ইউক্রেনকে সমরাস্ত্র দিয়ে সহযোগিতা করার কারণে চলমান সামরিক অভিযান দীর্ঘায়িত হচ্ছে। তিনি রাশিয়ার ইউক্রেন অভিযানে ব্যাপক রক্তপাতের জন্য ওয়াশিংটন ও তার ইউরোপীয় মিত্রদের দায়ী করেন। সূত্র: রয়টার্স

news24bd.tv/রিমু