যৌতুকের মামলায় জেলে পুলিশের এএসআই 
যৌতুকের মামলায় জেলে পুলিশের এএসআই 

সংগৃহীত ছবি

যৌতুকের মামলায় জেলে পুলিশের এএসআই 

অনলাইন ডেস্ক

স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় হুমায়ূন কবির নামের পুলিশের এক সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) কে জেল হাজতে পাঠিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) হাজির হলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম আরেফিন আহমেদ হ্যাপি তাকে বিকেলে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

হুমায়ূন কবির কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে। তিনি লক্ষীপুর জেলা পুলিশের হাজিরহাট তদন্ত কেন্দ্রের সহকারী উপপরিদর্শক হিসেবে কর্মরত আছেন।

 

আদালতে মামলার নথিপত্র থেকে জানা যায়, ২০১১ সালের ১৫ মে হুমায়ূন কবির কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বারের তারু মিয়ার মেয়ে খাদিজা আক্তারকে পারিবারিক ভাবে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে এক মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। সহকারী উপপরিদর্শক হুমায়ূন কবির ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর থানায় কর্মরত ছিলেন। গত ৭/৮ মাস পূর্ব থেকে এএসআই হুমায়ূন কবির তার পদোন্নতির জন্যে শ্বশুর-শাশুরির কাছে ১০ লাখ টাকা দাবি করেন।

যদি সেই টাকা না দেয়, তাহলে আরেকটি বিয়ে করবেন।  

গত ২০২১ সালের ২১ ডিসেম্বর তাদের মেয়ে হুমায়ূন কবিরের মোবাইলে গেইমস খেলছিলেন। এসময় সে মোবাইলে তার বাবা হুমায়ূন কবিরের সাথে অন্য এক মেয়ের অন্তরঙ্গ ছবি দেখে মা খাদিজা আক্তারকে দেখায়। এবিষয়ে খাদিজা তার স্বামী এএসআই হুমায়ূন কবিরকে জিজ্ঞাস করলে জানায়, বাবার বাড়ি থেকে ১০লাখ টাকা এনে না দিলে মোবাইলে ছবির মেয়েটিকে বিয়ে করবে বলে বাসা থেকে বের হয়ে যান। এরপর ফোন দিলে রিসিভ করেনি। বিষয়টি নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর সার্কেল অফিসে লিখিত অভিযোগ দিলেন, সেখান থেকে দুইজনকে মিলিয়ে দেওয়া হয়।

এরপর খাদিজার মা ও এএসআই হুমায়ূনের শ্বাশুড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের মেড্ডায় তাদের বাসায় বেড়াতে আসেন। গত মার্চ মাসের ৪ তারিখে হুমায়ূনের স্ত্রীর মামা ওয়ালিউল্লাহ ও বড় ভাই কাওসারের সামনে শাশুড়ির কাছে নিজের পদোন্নতির জন্য পুনরায় ১০ লাখ টাকা দাবি করেন। সেই টাকা দিতে অপরাগতা জানালে এএসআই হুমায়ূন তার স্ত্রী খাদিজার সঙ্গে সংসার করবে না বলে বাসা থেকে বের হয়ে গিয়ে আর যোগাযোগ করেনি।  

বাদি পক্ষের আইনজীবী সাইফুল ইসলাম জানান, যৌতুক দাবির ঘটনায় খাদিজা আক্তার বাদি হয়ে গত ১১ এপ্রিল আদালতে হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে আদালত গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে। বৃহস্পতিবার হাজির হলে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

news24bd.tv/আলী

সম্পর্কিত খবর