কমলাপুরে টিকিট প্রত্যাশীদের উপচে পড়া ভিড়
কমলাপুরে টিকিট প্রত্যাশীদের উপচে পড়া ভিড়

ছবি : নিউজ টোয়েন্টিফোর

কমলাপুরে টিকিট প্রত্যাশীদের উপচে পড়া ভিড়

অনলাইন ডেস্ক

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে আজ (শনিবার) থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু করার কথা থাকলেও গতকালই দেয়া হয়েছে ২৬শে এপ্রিলের টিকিট। সকাল ৮টা থেকে টিকিট বিক্রি শুরু হলেও অনেকে মধ্যরাত থেকে অনেকে ইফতারির পর থেকে অপেক্ষা করছেন। টিকেট প্রত্যাশীদের অভিযোগ এত ঘন্টা লাইন ধরে অপেক্ষা করলাম কিন্তু শেষ মুহুর্তে এসে লাইন ভেঙ্গে নতুন লাইন করা হচ্ছে। এতে করে টিকেট আমরা পাচ্ছি না।

টিকিটের কালোবাজারী নিয়ে অভিযোগ করেছেন অনেক যাত্রীরা। প্রতিটি কাউন্টারের সামনে থেকে টিকিট প্রত্যাশীদের সারি এঁকে-বেঁকে চলে গেছে স্টেশনের বাইরে পর্যন্ত।  

এর আগে গত ১৩ই এপ্রিল রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন সংবাদ সম্মেলন করে জানান, ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ‘৩রা মে’ ধরে অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে। ২৭শে এপ্রিলের টিকিট দেয়া হবে ২৩শে এপ্রিল। এভাবে ২৮শে এপ্রিলের টিকিট ২৪শে এপ্রিল, ২৯শে এপ্রিলের টিকিট ২৫শে এপ্রিল, ৩০শে এপ্রিলের টিকিট ২৬শে এপ্রিল এবং ১লা মের টিকিট ২৭শে এপ্রিল বিক্রি করা হবে।  

কমলাপুর রেল স্টেশনের ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ার সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার থেকে কাউন্টারগুলোতে টিকিট প্রত্যাশীর সংখ্যা অনেক বেশি। ২২শে এপিল ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরুর আগের দিন। অনেকে ভোগান্তি এড়াতে একদিন আগের টিকিট কাটতে এসেছে। ফলে ভিড় দেখা দিয়েছে। শনিবার থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রির সব প্রস্তুতি আমরা শেষ করেছি। আশা করছি সুষ্ঠু, সুন্দর পরিবেশে ও সুশৃঙ্খলভাবে টিকিট বিক্রি শুরু করতে পারবো। অনলাইনের পাশাপাশি কাউন্টারে ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হবে।

 জানা গেছে, অনলাইনে ই-টিকিটিংয়ের মাধ্যমে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি সকাল ৮টায় শুরু হবে। এছাড়া কাউন্টারে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা অগ্রিম টিকিট বিক্রি চলবে। প্রতিটি টিকিট বিক্রয়কেন্দ্রে একটি করে নারী ও প্রতিবন্ধীদের জন্য কাউন্টার থাকবে। একজন যাত্রী এক সঙ্গে সর্বোচ্চ ৪টি টিকিট কিনতে পারবেন।  
news24bd.tv/আলী