নিউমার্কেটে সংঘর্ষ : মকবুলের সাত দিন রিমান্ড চায় পুলিশ
নিউমার্কেটে সংঘর্ষ : মকবুলের সাত দিন রিমান্ড চায় পুলিশ

সংগৃহীত ছবি

নিউমার্কেটে সংঘর্ষ : মকবুলের সাত দিন রিমান্ড চায় পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক

নিউমার্কেট সংঘর্ষের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার ১ নম্বর আসামি বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট মকবুল হোসেন সরদারের ৭ দিনের রিমান্ডে চেয়েছে পুলিশ।

আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে নিউমার্কেট থানা থেকে মকবুলকে ঢাকার বিচারিক আদালতে নেওয়া হয়।

মহানগর হাকিম মামুনুর রশিদের আদালতে মকবুলের রিমান্ড আবেদনের ওপর শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। দুপুর ১২টার দিকে আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

আদালতের জিআর শাখা থেকে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

নিউমার্কেট জোনের সহকারি কমিশনার শরীফ মোঃ ফারুকজ্জামান জানান, আগামীকাল রোববার মকবুল হোসেকে আদালতে তোলা হবে। অন্যান্য আসামিদের ধরতে অভিযান চলছে। এছাড়া এর সাথে রাজনৈতিক কোন সম্পৃক্ততা রয়েছে কিনা তা জানা যাবে তদন্ত শেষে।

ঘটনা যেহেতু দুই পক্ষের ভুমিকা রয়েছে। সেক্ষেত্রে অন্যান্য আসামিদের হেফাজতে নেয়ার পরেই আসল রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি।  

এর আগে, নিউ মার্কেট ও ঢাকা কলেজ সংঘর্ষে বেআইনি জনতাবদ্ধে পুলিশের সরকারি কাজে বাধা প্রদান, পুলিশের উপর আক্রমণ, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে জখম ও ভাংচুর করার অপরাধে শুক্রবার গ্রেপ্তার হন অ্যাডভোকেট মকবুল হোসেন সরদার। তিনি নিউমার্কেট থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য।

পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে নিউ মার্কেট থানার পুলিশ পরিদর্শক ইয়ামিন কবীর বাদী হয়ে বিএনপি নেতা মকবুলসহ ২৪ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন।

মামলায় আরও যাদের নাম রয়েছে তারা হলেন- আমির হোসেন আলমগীর, মিজান, টিপু, হাজি জাহাঙ্গীর হোসেন পাটোয়ারী, হাসান জাহাঙ্গীর মিঠু, হারুন হাওলাদার, শাহ আলম শন্টু, শহিদুল ইসলাম শহিদ, জাপানি ফারুক, মিজান বেপারী, আসিফ, রহমত, সুমন, জসিম, বিল্লাল, হারুন, তোহা, মনির, বাচ্চু, জুলহাস, মিঠু, মিন্টু ও বাবুল।

news24bd.tv/রিমু