কলেজছাত্রকে বিবস্ত্র করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর নির্যাতন
কলেজছাত্রকে বিবস্ত্র করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর নির্যাতন

সংগৃহীত ছবি

কলেজছাত্রকে বিবস্ত্র করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর নির্যাতন

অনলাইন ডেস্ক

সাতক্ষীরার তালায় মেধাবী কলেজছাত্র শোয়েব আজিজ তন্ময়কে বিবস্ত্র করে তার চুল কেটে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের পাঁচজনের নামে মামলা হয়েছে। এ মামলার প্রধান আসামি হয়েছেন তালা সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আকিব ও ছাত্রলীগ নেতা সৌমিত্র। তালা থানার পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সোমবার সকালে মামলাটি রেকর্ড করা হয়েছে।

তবে এখন পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।

তালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জেহাদ আলম ফকরুল খান জানান, এ ঘটনায় নির্যাতিত শিক্ষার্থীর বাবা ৫ জনের নাম উল্লেখসহ বেশ কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করেছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে এসআই চন্দন কুমারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

কলেজছাত্র শোয়েব আজিজ তন্ময় বলেন, ছাত্রলীগ কর্মী নাহিদ হাসান উৎস আমার পূর্বপরিচিত। তালা বাজারে যাতায়াত সুবাদে তার সঙ্গে পরিচয়। রোববার দুপুরে আমাকে ফোন করে তালা কলেজ এলাকায় ডেকে নেয় উৎস। এরপর কলেজের পশ্চিম পাশের একটি রুমে নিয়ে যায়।

সেখানে টানা ৫ ঘণ্টা আটকে রেখে নির্যাতন চালায় আকিব, সৌমিত্র, সুমনসহ অন্যরা। হাত-পায়ে নির্মমভাবে মারপিট করে মাথা ন্যাড়া করে দেয়া হয়। এরপর বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে। তারপর বাড়িতে ফোন করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে তারা। খবর পেয়ে তন্ময়ের স্বজনরা তাকে অপহরণকারীদের কাছ থেকে উদ্ধার করে আনেন।

তন্ময়ের বাবা শেখ আজিজুর রহমান তার মামলায় এসব অভিযোগ তুলে ধরে জড়িতদের বিচার দাবি করেছেন। এ ঘটনা নিয়ে তালা এলাকায় শুরু হয়েছে তোলপাড়। ছাত্রলীগের সেই সব ক্যাডাররা এরই মধ্যে গা-ঢাকা দিয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আশিকুর রহমান আশিক  বলেন, ছাত্রলীগের কোনো নেতাকর্মী এমন ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম  বলেন, এই ঘটনার আমি নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে বিষয়টি তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।  

news24bd.tv/আলী