ইউক্রেনের পরমাণু স্থাপনার উপর রুশ ক্ষেপণাস্ত্র, তদন্ত চলছে
ইউক্রেনের পরমাণু স্থাপনার উপর রুশ ক্ষেপণাস্ত্র, তদন্ত চলছে

ইউক্রেন সফরে গিয়ে প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন আইএইএ’র মহাসচিব

ইউক্রেনের পরমাণু স্থাপনার উপর রুশ ক্ষেপণাস্ত্র, তদন্ত চলছে

অনলাইন ডেস্ক

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পরাশক্তি রাশিয়া। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোর থেকে শুরু হয় এই অভিযান। রাশিয়ার ছোড়া বোমা আর রকেটে কেঁপে উঠছে ইউক্রেনের বিভিন্ন শহর। এর মধ্যে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি নগরী দখলে নিয়েছে রুশ বাহিনী।

ইউক্রেনে প্রতিদিনই বাড়ছে নিহতের সংখ্যা। শরণার্থী হয়েছেন লাখ লাখ মানুষ। রাশিয়া-ইউক্রেন চলমান যুদ্ধে ইউক্রেনের একটি পরমাণু স্থাপনার উপর দিয়ে রাশিয়ার ছোড়া একটি ক্ষেপণাস্ত্র চলে গেছে বলে জানিয়েছে কিয়েভ সরকার।

এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা বা আইএইএ’র মহাসচিব রাফায়েল গ্রোসি বলেন, ইউক্রেন সরকার তার সংস্থার কাছে এরকম একটি অভিযোগ লিখিতভাবে জানিয়েছে এবং অভিযোগটি তদন্ত করে দেখছে আইএইএ।

তিনিবলেন, ইউক্রেন সরকার তাকে জানিয়েছে, গত ১৬ এপ্রিল দেশটির একটি পরমাণু স্থাপনার ঠিক উপর দিয়ে রাশিয়ার একটি ক্ষেপণাস্ত্র উড়ে গেছে। পরমাণু স্থাপনাটি রাজধানী কিয়েভ থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে ইয়াঝনোক্রানস্ক শহরে অবস্থিত।

গ্রোসি এক বিবৃতিতে বলেন, ক্ষেপণাস্ত্রটি যদি উড়ে না গিয়ে কারিগরি সমস্যার কারণে ওই স্থাপনায় আঘাত হানত তাহলে ভয়াবহ পারমাণবিক বিপর্যয় ঘটতে পারত।

বিবৃতিতে ইউক্রেনের জাপোরোঝিয়া পরমাণু স্থাপনার ব্যাপারেও উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।  

প্রসঙ্গত, এর আগে ১৯৮৬ সালের ২৬ এপ্রিল তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের চেরনোবিল পরমাণু স্থাপনার চার নম্বর রিঅ্যাক্টরে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটেছিল। ওই ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে ৩০ ব্যক্তির মৃত্যু হয় এবং আশপাশে ছড়িয়ে পড়া বিষাক্ত গ্যাসের প্রভাবে পরবর্তীতে আরো বহু মানুষের মৃত্যু ঘটে।

news24bd.tv/রিমু