আ.লীগ নেতাকে গাছে বেঁধে মারধর
আ.লীগ নেতাকে গাছে বেঁধে মারধর

সংগৃহীত ছবি

আ.লীগ নেতাকে গাছে বেঁধে মারধর

অনলাইন ডেস্ক

ইফতার মাহফিলের ব্যানারে স্থানীয় চেয়ারম্যানের না দেওয়ায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের এক নেতাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। মারধরের শিকার হওয়া আ.লীগ নেতা চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি জিতেন কান্তি গুহ। শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) বিকেলে হাইদগাঁও ইউনিয়নের ব্রাহ্মণঘাটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ রয়েছে, ইফতার মাহফিলের ব্যানারে হাইদগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বদরুউদ্দিন মোহাম্মদ জসীমের নাম না দেওয়ার তার লোকজন জিতেন গুহর ওপর হামলা করেছে।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার হাইদগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় স্থানীয় গাউছিয়া কমিউনিটি সেন্টারে। ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জসিমকে ইফতারে মাহফিলে দাওয়াত না দেওয়া ও ব্যানারে তার নাম থাকায় ঝামেলার সৃষ্টি হয়। বিকেলের দিকে চেয়ারম্যানসহ তার লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। একপর্যায়ে চেয়ারম্যানের সঙ্গে থাকা বাকি লোকজন জিতেন গুহকে টেনে হিঁচড়ে বাইরে নিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করে। এ সময় আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতিকেও চেয়ারম্যানের সমর্থকরা গালাগাল করেন।  

চট্টগ্রামের পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, ইফতার মাহফিলের ব্যানারে বর্তমান চেয়ারম্যানের নাম না থাকায় জিতেন গুহের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। একপর্যায়ে তাকে বেঁধে রাখা হয়েছিল। পরে তারাই (হামলাকারীরা) আবার খুলে দিয়েছে। বর্তমানে জিতেন গুহকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় কেউ অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হামলার বিষয়ে হাইদগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বদরুউদ্দিন মোহাম্মদ জসিম বলেন, এগুলো হচ্ছে আওয়ামী লীগের বিষয়। যে মার খেয়েছে সে আওয়ামী লীগের, যারা মেরেছে তারাও আওয়ামী লীগের। তার ওপর মানুষের ক্ষোভ ছিল। সেজন্য তাকে মারধর করা হয়েছে।  

তিনি আরও বলেন, ব্যানারে নাম থাকলেই কী না থাকলেই কী। হামলায় কোনো রাজনৈতিক বিষয় নেই, এটা ব্যক্তিগত বিষয়ে হামলা হয়েছে। ব্যানারের বিষয়টি ১০টি ঘটনার মধ্যে একটি।  
 news24bd.tv/আলী