‘নিরীহ আলেমদের ১ বছরের উপর জেলে রেখেছে সরকার’
‘নিরীহ আলেমদের ১ বছরের উপর জেলে রেখেছে সরকার’

‘নিরীহ আলেমদের ১ বছরের উপর জেলে রেখেছে সরকার’

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট ঈদ উপলক্ষ্যে মোদী বিরোধী বিক্ষোভের কারণে গ্রেপ্তার ওলামাদের মুক্তি দাবি জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি ও প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

গতবছর ২৬ মার্চ ২০২১ ইং তারিখ বাংলাদেশের স্বাধীনতা সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আগমন উপলক্ষ্যে সারা দেশে সমমনা ইসলামী সংগঠন বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন রাজপথে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ আন্দোলনের কর্মসূচি পালন করে। উক্ত কর্মসূচি পালন করার কারণে সারাদেশ থেকে ২০০ শতাধীক আলেমসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের বহু নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেন। এখনো এক বছরের উপর উপর হতে চলছে কিছু সংখ্যক ছাদের ও যুবকদের মুক্তি পাওয়া গেলেও নিরিহ গনতান্ত্রিককামী আলিম ওলামাদের মুক্তি দেওয়া হয়নি।

আজ রোববার (১ লা মে) এক বিবৃতিতে গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি ও প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, গত বছর ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আগমন উপলক্ষ্যে সারা দেশের দুই শতাধিক নিরীহ আলেম ওলামাদের গ্রেপ্তার করে ১ বছরের উপর জেলে রেখেছেন সরকার। তাদেরকে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে বিশেষ বিবেচনায়, মানবিক ও  মহানুভবতায় মুক্তি দেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট জোর দাবি জানান তিনি।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আরো বলেন, আলেম ওলামাতো নিজেদের ব্যক্তিগত স্বার্থে কোনো প্রতিবাদ করেন নাই। তারা ভারতের গুজরাট সহিংসতা, বাবরি মসজিদ ইস্যুর পাশাপাশি ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের উপর নির্যাতন এবং হিন্দুবাদী দৃষ্টি ভঙ্গির জন্য অভিযুক্ত করে নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করেন। আলেম ওলামা ও রাজনৈতিক দলগুলোর সেদিনের বিরোধিতা ছিলো গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক অধিকার। সরকার ভারতকে খুশি করতে অন্যায়ভাবে আলেমদেরকে তাদের প্রাপ্য মুক্তি দিচ্ছে না। একটি স্বাধীনদেশ এভাবে চলতে পারে না। ওলামাদের পরিবার না খেয়ে কঠিন অর্থ অভাবে দিনযাপন করছেন। আমি আশাকরি পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বিশেষ ক্ষমতাবলে নরেন্দ্র মোদী বিরোধী আন্দোলনে গ্রেপ্তার সারাদেশের সকল আলেম ও নিরীহ মানুষেরদের মুক্তির ব্যবস্থা করবেন।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আরো বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আপনি পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে মুক্তি দিয়ে তাঁকে উন্মোক্ত করে দিন। তিনি আশা করেন, ঈদের দিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তাঁর বাসায় গিয়ে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করতে যাবেন।  তাহলে আপনার এ ধরনের মানবিক কাজ ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে। আর আপনার পিতা মরহুম শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মা শান্তি পাবে। পরিশেষে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু ও সুস্থতা কামনা করেন।

news24bd.tv/ তৌহিদ