শর্টকাটে বড়লোক হতে ছিনতাই করতেন এই ইঞ্জিনিয়ার
শর্টকাটে বড়লোক হতে ছিনতাই করতেন এই ইঞ্জিনিয়ার

শর্টকাটে বড়লোক হতে ছিনতাই করতেন এই ইঞ্জিনিয়ার

নাঈম আল জিকো

এবার ছিনতাইয়ের অভিযোগে ধরা পড়ল এক ইঞ্জিনিয়ার। শর্টকাটে বড়লোক হতে ছিনতাইয়ের পথ বেছে নিয়েছিল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল ইসলাম। তার কোম্পানির ড্রাইভার লেলিন শেখের কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে এই চক্র করে সে।

গেলো বছর ১৪ ডিসেম্বর দুপুরে রাজধানীর মিরপুর ১১ নম্বরের দৃশ্য এটি।

সিসিটিভির ফুটেজ এ দেখা যায়,  একজন ব্যক্তি ব্যাগ নিয়ে রিক্সায় করে যাচ্ছেন। মিরপুর বাংলায় স্কুলের কাছাকাছি পৌঁছালে রিক্সার পেছন দিক থেকে একটি মোটরসাইকেল এসে  তার কাছ থাকা ব্যাগ আচমকা টান মেরে নিয়ে  প্রশিকার রাস্তার দিকে চলে যায়। এ সময় ভুক্তভোগী ধাওয়া করে এই ছিনতাইকারীদের ধরতে ব্যর্থ হয়।

সিসিটিভির ফুটেজ দেখে ছিনতাইকারীদের এই চক্রটিকে ধরতে অভিযানে নামে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। ছিনতাই করে রাজধানীর মোহাম্মদপুর কতাশুর এলাকায় দিয়ে মোটরসাইকেল করে যাওয়ার সময় লেলিন ও আশরাফুলকে আটক করা হয়। উদ্ধার করা হয় ছিনতাই করা লাখ লাখ টাকা।

পরে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করা হয় জিল্লুর রহমান ও সাইফুল ইসলাম নামে আরও দুই ছিনতাইকারীকে। এ সময়, ৩৪ লাখ টাকা, ২টি মোটরসাইকেল, ৪ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

পুলিশ জানায়, চক্রটি কম যানজট যুক্ত এলাকা ছিনতাইয়ের জন্য বেছে নেয়। আর ছিনতাইয়ের টাকা ভাগ করে নেয় সমানুপাতিক হারে। আর মূল্যবান জিনিস বিক্রি করে গেজেট এবং গিয়ারসে কয়েকটি নির্দিষ্ট চোরাই মালের ক্রেতার কাছে।  

গ্রেপ্তার ৪ ছিনতাইকারী মিরপুর, পল্লবী, বনানী, গুলশান ধানমন্ডি, আগারগাঁও ও তেজগাঁও এলাকায়  ১০০ টির বেশি ছিনতাই করেছে বলে জানতে পড়েছে পুলিশ।

news24bd.tv তৌহিদ