ঈদের দিন গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন!
ঈদের দিন গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন!

সংগৃহীত ছবি

ঈদের দিন গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতন!

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে এক গৃহবধুকে গাছের সাথে পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্মম নির্যাতন করা হয়েছে। নির্যাতিত গৃহবধুর নাম শেফালী বেগম। বয়স ২৭ বছর। একই সাথে গৃহবধুর বাবা শামসুল আলম (৬০) মা নাজমা বেগম (৫০) ও ভাই নাসির উদ্দিনকেব (২১) মারপিট করা হয়েছে।

ঈদের দিন বিকেলে কামারখন্দ উপজেলার ভদ্রঘাট ইউনিয়নের চৈরগাঁতী পুর্বপাড়া গ্রামের এ ঘটনা ঘটে। ৯৯৯ কল পেয়ে পুলিশ নির্যাতিতদের উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে ভর্তি করেছে।  

আহত শামসুল ইসলাম জানান, তার সৎভাই নজরুল ইসলামের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। এ অবস্থায় ঈদের দিন বিকেলে ভাই নজরুল ইসলাম, হাফিজুল সেখ, মাহমুদুল সেখ, রাশিদুল সেখ, হাফিজুলের ছেলে প্ত্রু মেরাজ সেখ, নজরুল ইসলামের স্ত্রী হাফিজা বেগম(৩৫), হাফিজুলে স্ত্রী শাহানাজ বেগম, মাহমুদুলের স্ত্রী তাসলিমা বেগম ও রাশিদুল সেখের স্ত্রী তানিয়া বেগম  সংঘবদ্ধ হয়ে আমাদের উপর হামলা চালিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। এক পর্যায়ে আমার মেয়ে শেফালী বেগমকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ডাব গাছের সাথে বেধে প্রায় ৪৫ মিনিট মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। পরে স্থানীয়রা  ৯৯৯ ফোনে  কামারখন্দ থানায় ফোন দিলে পুলিশ আমাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। বর্তমানে সকলেই চিকিৎসাধীন রয়েছি।  

কামারখন্দ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাবিবুল্লাহ জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। পরবর্তীতে ৯৯৯ ফোন পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে আহতদের  উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছি। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।  

news24bd.tv/desk 

;