কনডম ফুটো করায় নারীর শাস্তি!
কনডম ফুটো করায় নারীর শাস্তি!

প্রতীকী ছবি

কনডম ফুটো করায় নারীর শাস্তি!

অনলাইন ডেস্ক

গর্ভবতী হওয়ার ইচ্ছায় সঙ্গীকে না জানিয়ে তার কনডম ফুটো করার দায়ে জার্মানির এক নারীকে বুধবার ছয় মাসের স্থগিত সাজা দেয়া হয়েছে ৷ একে ‘ঐতিহাসিক’ মামলা বলে আখ্যায়িত করেছেন বিলেফেল্ড শহরের আঞ্চলিক আদালতের বিচারক আস্ট্রিড জালেভস্কি৷ খবর ডয়চে ভেলে।

জার্মান সংবাদপত্র বিল্ড-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, ৩৯ বছর বয়সি ঐ নারী ৪২ বছর বয়সি এক ব্যক্তির সঙ্গে ‘লাভের জন্য বন্ধুত্ব' সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন৷ ২০২১ সালের শুরুতে অনলাইনে পরিচয়ের পর তারা অনিয়মিত যৌন সম্পর্ক শুরু করেন৷ এক পর্যায়ে ঐ নারী তার সঙ্গীর প্রতি গভীর আকর্ষণ অনুভব করা শুরু করেন৷ যদিও তিনি জানতেন, তার পুরুষ সঙ্গীটি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ কোনো সম্পর্কে জড়াতে চান না৷

তাই গর্ভবতী হওয়ার ইচ্ছায় ঐ নারী তার সঙ্গীর কনডম ফুটো করেছিলেন৷ তবে তার পরিকল্পনা সফল হয়নি৷ ঐ নারী তার সঙ্গীকে হোয়াটসঅ্যাপে বার্তা পাঠিয়ে বলেছিলেন তিনি গর্ভবতী এবং ইচ্ছে করে তিনি কনডম ফুটো করেছিলেন৷ এরপর পুরুষ সঙ্গীটি মামলা করেন৷

এই ঘটনায় অপরাধ হয়েছে সে ব্যাপারে আদালত ও কৌঁসুলিরা একমত হলেও ঐ নারীকে ঠিক কী অপরাধে শাস্তি দেয়া হবে, তা নিয়ে শুরুতে কেউ নিশ্চিত হতে পারছিলেন না৷ মামলার শুরুতে এমন অপরাধ ধর্ষণ হিসেবে বিবেচনা করা হবে কিনা, তা নিয়ে তদন্ত হলেও পরে বিচারক ঐ নারীকে যৌন হয়রানির অপরাধে অভিযুক্ত করেন৷

রায় ঘোষণার সময় বিচারক জালেভস্কি বলেন, অস্বাভাবিক এই মামলাটি জার্মানির আইনের ইতিহাস বইয়ে স্থান পাবে৷ এটি ‘স্টেলথিং' অপরাধের একটি উদাহরণ- তবে এক্ষেত্রে অপরাধী একজন নারী৷ যৌনকর্মের সময় সঙ্গীকে না জানিয়ে একজন পুরুষের কনডম খুলে ফেলাকে সাধারণত ‘স্টেলথিং' বলা হয়৷

news24bd.tv/আলী

;