শ্রীলংকার বিদায়ী প্রধানমন্ত্রীকে অজ্ঞাত স্থানে সরিয়ে নিলেন সৈন্যরা
শ্রীলংকার বিদায়ী প্রধানমন্ত্রীকে অজ্ঞাত স্থানে সরিয়ে নিলেন সৈন্যরা

সংগৃহীত ছবি

শ্রীলংকার বিদায়ী প্রধানমন্ত্রীকে অজ্ঞাত স্থানে সরিয়ে নিলেন সৈন্যরা

অনলাইন ডেস্ক

শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসের পদত্যাগের পরেও ক্ষোভ কমেনি আন্দোলনকারীদের। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সরকার সমর্থকদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হচ্ছে। বিদায়ী মাহিন্দা রাজাপাকসেকে আজ মঙ্গলবার সশস্ত্র সৈন্যরা কলম্বোতে তার সরকারি বাসভবন থেকে সরিয়ে নিয়েছেন। হাজার হাজার বিক্ষোভকারী ভবনটির সদর দরজা ভেঙ্গে ফেলার পর তাকে সেখান থেকে সরিয়ে নেয়া হলো।

খবর এএফপি’র।

এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিক্ষোভকারীরা রাজধানীর ‘টেম্পল ট্রিস’ বাসভবনের দিকে অগ্রসর হয়ে দুই তলা বিশিষ্ট ভবনটিতে হামলা চালানোর চেষ্টা করে। রাজাপাকসে সেখানে তার একেবারে কাছের পরিবারের সদস্যদের সাথে অবস্থান করছিলেন।

নিরাপত্তা বাহিনীর শীর্ষ এক কর্মকর্তা এএফপি’কে বলেন, 'ভোরের আগে সেখানে অভিযান চালানোর পরে সৈন্যরা সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারকে নিরপদে সরিয়ে নেন। এ সময় কমপক্ষে ১০ টি পেট্রোল বোমা বাসভবন চত্বরে ছুঁড়ে মারা হয়'।

সহিংস বিক্ষোভের এক দিন পর রাজাপাকসেকে অজ্ঞাত স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়। ওই নিরাপত্তা কর্মকর্তা জানান, পুলিশ উপনিবেশ শাসনামলের এ ভবনের তিনটি প্রবেশ পথের সবক’টি থেকে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদনে গ্যাস নিক্ষেপ করেন এবং আকাশের দিকে সতর্কতামূলক গুলি ছুড়েন। এ ভবনকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতীক মনে করা হয়।

সান্ধ আইনের মধ্যেও রাজাপাকসের পৈতৃক বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে আন্দোলনকারীরা। বেশ কয়েকজন ক্ষমতাসীন দলের এমপি এবং একজন বিচারপতির বাড়ি জ্বালিয়ে দেয়ার ঘটনাও ঘটেছে। চলমান বিক্ষোভে একজন এমপি সহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন বহু মানুষ। স্বাধীনতার পর থেকে সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক সংকটে রয়েছে শ্রীলংকা। বর্তমান দুর্দশার জন্য গোতাবায়া এবং মাহিন্দাকেই দায়ী করছেন বিরোধী দলগুলো।

news24bd.tv/রিমু 

;