শিশু বক্তা রফিকুল মাদানীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু
শিশু বক্তা রফিকুল মাদানীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

ফাইল ছবি

শিশু বক্তা রফিকুল মাদানীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

অনলাইন ডেস্ক

শিশু বক্তা রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে ঢাকার মতিঝিল ও গাজীপুরের গাছা থানার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে হওয়া পৃথক দুইটি মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।

বুধবার (১১ মে) ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামস জগলুল হোসেনের আদালতে সাক্ষ্য দেন মতিঝিল থানার মামলার বাদী সৈয়দ আদনান ও গাজীপুর জেলার গাছা থানার মামলার র‌্যাব-১ এর নায়েব সুবেদার আব্দুল খালেক। পরে আসামিপক্ষের আইনজীবী তাকে জেরা করেন। এরপর আগামী ১৬ জুন পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করা হয়।

২২ ফেব্রুয়ারি এ মামলায় রফিকুল মাদানীসহ দুইজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন একই ট্রাইব্যুনাল৷ ২০২১ সালের ২১ অক্টোবর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পরিদর্শক রেজাউল করিম ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

আদনান শান্ত নামের এক ব্যক্তি একই বছর ৭ এপ্রিল মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মতিঝিল থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ইউটিউব ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের উস্কানিমূলক বক্তব্য ছড়াচ্ছেন। তার এসব বক্তব্য দেশের সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হচ্ছে এবং নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়ছে।

রাষ্ট্রবিরোধী ও উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে গাজীপুরের গাছা থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা হয়। গত ২৬ জানুয়ারি ওই মামলাতেও অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল।

২০২১ সালের ৭ এপ্রিল ভোরে নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার লেটিরকান্দার নিজ বাড়ি থেকে রফিকুল ইসলামকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব)। এরপর তাকে কয়েক দফা রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। এ মামলায় বর্তমানে তিনি উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছে। তবে তার বিরুদ্ধে অন্য আরও মামলা থাকায় এখনও জামিনে মুক্তি পাননি।

news24bd.tv/কামরুল

;