ডেসটিনিকে বিলুপ্তির নির্দেশ

ডেসটিনিকে বিলুপ্তির নির্দেশ

হাবিবুল ইসলাম হাবিব

অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারের মামলায় ডেসটিনি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল আমীন, প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান এম হারুন-অর রশীদসহ ৪৬ আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডের পাশাপাশি অর্থদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রফিকুলকে ১২ বছরের কারাদণ্ড ও চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনকে ১০বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন। এছাড়া ৪৬ আসামীকে ২৩শো কোটি টাকা অর্থদন্ড দিয়েছেন আদালত। একইসাথে গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে ৬ সদস্যের কমিটি গঠনের আদেশ দিয়েছেন।

 

৪ হাজার ১১৯ কোটি ২৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ ও পাচার মামলায় রায় ঘোষণার জন্য ডেসটিনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল আমীন ও চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনকে আদালতে হাজির করা হয়। বাইরে  তখনও হৈ হুল্লোরে ব্যস্ত কয়েককশ গ্রাহক। তাই আদালত প্রাঙ্গণে জোরদার করা হয় নিরাপত্তা।

একহাজার পৃষ্ঠার রায় হওয়ায় শুধুমাত্র আসামীদের সাজা পড়ে শুনান ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪-এর বিচারক শেখ নাজমুল ।

রফিকুল আমীনকে ১২ বছরের কারাদন্ড ও ২০০ কোটি টাকা অর্থদন্ড।  কোম্পানির প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান এমহারুন-অর-রশীদকে  ৪ বছরের জেল ও ৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা অর্থদন্ড দেন আদালত। এছাড়া ডেসটিনির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনকে দেয়া হয় ১০ বছরের কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড। মামলার ৪৬ আসামীর মধ্যে বাকীদের কারাদণ্ড ও অর্থদন্ড দেয়া হয়।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী মীর আহমেদ আলী সালাম বলেন, জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে আসামিরা ১ হাজার ৯০১ কোটি টাকা অপরাধলব্দ আয় হিসেবে অর্জন করেছিলেন। সেখান থেকে তারা বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় ১ হাজার ৮৬১ কোটি টাকার বেশি স্থানান্তর করে মানি লন্ডারিংয়ের অপরাধ করেছেন। দুদক থেকে যথেষ্ট প্রমাণাদি দিয়ে মামলাটি প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। এতে ৪৬ জন আসামির প্রত্যেকেই সাজাপ্রাপ্ত হয়েছেন।    

তিনি আরও বলেন, যাদের টাকা এখানে বিনিয়োগ হয়েছিল, তাদের জন্য করণীয় ও ক্ষতিপূরণ দেয়ার বিষয়ে ছয় সদস্যের একটি কমিটি গঠনের নির্দেশনা দিয়েছেন আদালত। কমিটির প্রধান হবেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি। এ ব্যাপারে সার্বিক সহযোগিতার জন্য দুদককে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

তবে কতদিনের মধ্যে কমিটি গঠন ও গ্রাহকদের টাকা ফিরিয়ে দেয়া হবে, সে বিষয় কোনো নির্দেশনা আদালত দিয়েছেন কি না, সে বিষয়ে মীর আহমেদ আলী সালাম বলেন, মামলার রায় এক হাজার পৃষ্ঠার। পূর্ণাঙ্গ রায় হাতে না পাওয়া পর্যন্ত বিস্তারিত বলা সম্ভব নয়।

অন্যদিকে ডেসটিনির আইনজীবী ব্যারিস্টার উজ্জ্বল ভৌমিক বলেন, আমরা রায়ে সংক্ষুব্ধ। আমাদের ক্লায়েন্টের নির্দেশনা পেলে উচ্চ আদালতে এ রায়ের বিরুদ্ধে যথাযথ প্রতিকার নেব।

রায়ে ডেসটিনি গ্রুপকে বিলুপ্তি ঘোষণা করে গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে ‍সুপ্রিমকোর্টের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির নেতৃত্বে ৬সদস্যের কমিটি গঠন করতে সরকারকে নির্দেশনা দিয়েছেন আদালত। কলাবাগান থানায় করা দুদকের মামলায় ২০১২ সাল থেকে কারাগারে আছেন ডেসটিনির এমডি রফিকুল আমীন।

news24bd.tv/আলী

;