প্রতিবেশীকে মারধর ও হামলার অভিযোগে কাউন্সিলর গ্রেপ্তার
প্রতিবেশীকে মারধর ও হামলার অভিযোগে কাউন্সিলর গ্রেপ্তার

সংগৃহীত ছবি

প্রতিবেশীকে মারধর ও হামলার অভিযোগে কাউন্সিলর গ্রেপ্তার

মাদারীপুর প্রতিনিধি

মাদারীপুরের কালকিনিতে পুলিশের সামনে প্রতিবেশী পরিবারের ওপর হামলার অভিযোগে পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে তাকে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার নয়াকান্দি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) ইসতিয়াক আশফাক রাসেল। তিনি বলেন, প্রতিবেশী পরিবারের ওপর হামলার ঘটনায় ভুক্তভোগী ঝন্টু মণ্ডল বৃহস্পতিবার রাতে একটি লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ তা মামলা হিসেবে গ্রহণ করে।

পরে মামলার প্রধান আসামি কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেনকে রাতে নয়াকান্দি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। মামলার বাকি আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। আনোয়ার হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, বুধবার কালকিনি উপজেলার নয়াকান্দি এলাকায় ঝন্টু মন্ডল ও তার পরিবারের ওপর হামলার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে দেখা যায়- কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, তার স্ত্রী রিক্তা বেগম ও তার ছেলেরা এই হামলা চালায়। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়- কাউন্সিলরের স্ত্রী রিক্তা বেগম অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে হুমকি দিচ্ছেন।  

কাউন্সিলর আনোয়ার তখন পাশে দাঁড়িয়ে স্ত্রীকে দূরে সড়ানোর চেষ্টা করছিলেন। ঝন্টুর ছেলে উজ্জ্বল এ সময় মুঠোফোন বের করে ভিডিও করতে গেলে কাউন্সিলর আনোয়ার উজ্জ্বলের ফোন কেড়ে নিয়ে তাকে মাটিয়ে ফেলে বেধরক মারধর করে।  

এ সময় একটি ইট দিয়ে উজ্জ্বলের মাথা ফাটিয়ে দেন কাউন্সিলর আনোয়ার। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ঝন্টু মণ্ডল হামলাকারী কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেনসহ তার ছেলে রিফাত বেপারী ও ভাতিজা সাব্বির বেপারীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ মামলা গ্রহণ করে আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করে।

news24bd.tv/কামরুল

;