‘গরুর গোবর থেকে ‘সিএনজি’ তৈরি করা হবে, মহিষের গোবরও কেনা হবে’
‘গরুর গোবর থেকে ‘সিএনজি’ তৈরি করা হবে, মহিষের গোবরও কেনা হবে’

‘গরুর গোবর থেকে ‘সিএনজি’ তৈরি করা হবে, মহিষের গোবরও কেনা হবে’

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে বিজেপিশাসিত উত্তর প্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকারের প্রাণিসম্পদ ও দুধ উন্নয়ন মন্ত্রী ধরমপাল সিং বলেছেন, গোবর থেকে ‘সিএনজি’ তৈরি করাই তার অগ্রাধিকারে রয়েছে। প্রয়োজনে মহিষের গোবরও কিনবো।

আজ (রোববার) হিন্দি গণমাধ্যম ‘আজতক’ সূত্রে প্রকাশ, মন্ত্রী ধরমপাল সিং বলেছেন, ‘সিএনজি’ উৎপাদনকারী কোম্পানির সঙ্গে কথা হয়েছে, যারা প্রতি কেজি গোবর দেড় টাকায় কেনার প্রস্তাব দিয়েছে। কিন্তু আমরা বলেছি প্রতি কেজি দুই টাকা দিতে।

কোম্পানির লোকজন বিষয়টি নিয়ে ভাবছেন। তারা গোবর থেকে ‘সিএনজি’ তৈরি করে সরকারকে ডেমোও দেখিয়েছে। শুরুর জন্য মডেল হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে বেরেলি বিভাগকে। ’ 

বান্দা সফরে আসা মন্ত্রী ধরমপাল সিং আরও বলেন, সরকার সমাজের সহায়তায় রাজ্যের গোশালাগুলোকে আর্থিকভাবে সমৃদ্ধ করতে চায়। গোবর কেনার বিবৃতিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হচ্ছেন প্রশ্ন করা হলে তিনি হেসে বলেন, ‘ভালো প্রসঙ্গ উত্থাপিত হয়েছে। আমি ভুলেই গিয়েছিলাম। দেখুন, যতক্ষণ না গোশালাগুলোর অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো হয়, ততক্ষণ কাজ হবে না। একটি কোম্পানির সঙ্গে কথা হয়েছে। ট্রোলিংয়ের কোনো কথা নেই। আমরা সততার সঙ্গে কাজ করব।  

তিনি বলেন, এই মুহূর্তে আমরা গ্যাস নির্মাতা কোম্পানিকে বেরেলি ডিভিশনকে মডেল হিসেবে দিয়েছি। তারা পরে ঝাঁসি, গোরক্ষপুর, চিত্রকূট ও অন্যান্য বিভাগে কাজ করবে। এসব বিভাগে গোবর থেকে ‘সিএনজি’ তৈরি হবে। সমাজের সহযোগিতায় বান্দার গোশালাগুলোকে আর্থিকভাবে সচ্ছল করতে চান বলেও মন্ত্রী ধরমপাল সিং মন্তব্য করেন।  

গত ফেব্রুয়ারিতে মধ্য প্রদেশে দেশের প্রথম ‘গোবর-ধন’ প্রকল্পের সূচনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই প্রকল্প থেকে দৈনিক ১৭ হাজার টন ‘সিএনজি’ ছাড়াও ১০০ টন প্রাকৃতিক সার উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা রাখা হয়েছে। মধ্য প্রদেশ সরকার ঠিক করেছে ওই প্রকল্প থেকে তৈরি হওয়া গ্যাস ব্যবহার করে ইনদৌর শহরে ৪০০ বাস এবং দেড় হাজার ছোট গাড়ি চালানো হবে।

news24bd.tv তৌহিদ