ভুয়া কাবিনে ৭ নারীর সঙ্গে অবৈধ শারীরিক সম্পর্ক!
ভুয়া কাবিনে ৭ নারীর সঙ্গে অবৈধ শারীরিক সম্পর্ক!

প্রতীকী ছবি

তরুণীর ধর্ষণের অভিযোগে র্যাবের হাতে ধরা

ভুয়া কাবিনে ৭ নারীর সঙ্গে অবৈধ শারীরিক সম্পর্ক!

অনলাইন ডেস্ক

ভুয়া কাবিন নামার মাধ্যমে বিয়ে করে এক তরুণীকে চার মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার রামপুর এলাকা থেকে মো. রেজাউল করিম মাছুম (৩৬) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। র‌্যাব-১১, সিপিসি-২, কুমিল্লার কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।  

র‌্যাব জানায়, কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার পাকামারা এলাকার ভুক্তভোগী ওই তরুণী র‌্যাব কার্যালয়ে ১৩ মে অভিযোগ দায়ের করেন।

 

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, মোবাইল ফোনে অপরিচিতি নম্বরে কলের মাধ্যমে সদর উপজেলার আন্দরসার এলাকার বাসিন্দা মো. রেজাউল করিম মাছুম (৩৬) নামে একজনের সঙ্গে পরিচয় হয়। পরে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। দরিদ্র পরিবারের মেয়ে বুঝতে পেরে রেজাউল তরণীকে বিয়ে করে সুখে শান্তিতে রাখার জন্য আশ্বস্ত করেন। এ ছাড়া বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে বিয়ের জন্য রাজি করান। গেল বছরের ১৬ ডিসেম্বর এক শ টাকার স্ট্যাম্পও বিভিন্ন কাগজপত্রে স্বাক্ষর করে বিয়ে হয় তাদের। পরে যে যার মতো বাড়ি চলে যান। এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত নগরীর একটি এলাকায় স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস শুরু করেন তারা।  

এ চার মাস রেজাউল বেকার থাকলেও ওই তরুণী ইপিজেড এলাকায় গার্মেন্টস কর্মীর চাকরি করে সংসার চালান। গত ১২ এপ্রিল ওই তরুণী চাকরির কাজে স্বামীর জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি কার্ড) চান ওই তরুণী। এ সময় রেজাউলের এনআইডি কার্ড দেখে জানতে পারেন কাবিনে উল্লেখিত রেজাউলের ঠিকানা ভুয়া। বিষয়টি জানতে পেরে রেজাউলকে পুনরায় ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক বিয়ে করার জন্য চাপ দিলে রেজাউল তরুণীকে বিভিন্ন হুমকি-ধমকি দিতে থাকেন। পরে রেজাউলের নিজ বাড়িতে গিয়ে ভুক্তভোগী তরুণী জানতে পারেন আগেই তিনটি বিয়ে করেছেন রেজাউল। যার মধ্যে দুজন স্ত্রী রেজাউলের বাড়িতে রয়েছেন এবং একজনকে এরই মেধ্যে তালাক দিয়েছেন। এমন অনেক মেয়ের সঙ্গে তিনি প্রতারণা করেছেন। এ ঘটনার পর ওই তরুণী তাঁর বাবার বাড়িতে চলে যান। এরপর থেকে রেজাউল ওই তরুণীকে তাঁদের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ভিডিও টাকা না দিলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।

র‌্যাব আরও জানায়, রেজাউলকে গ্রেপ্তারের সময় তার নিকট থেকে জব্দকৃত একাধিক বিয়ের হলফনামা এবং ভুয়া এনআইডি কার্ড জব্দ করা হয়। যেগুলো ব্যবহার করে রেজাউল ওই তরুণীর মতো আরও ৬/৭ জন নারীর সঙ্গে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভুয়া কাবিন নামা তৈরি করে তাদের সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত অবৈধভাবে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছেন। এ বিষয়ে র‌্যাবের সহযোগিতায় ভুক্তভোগী তরুনী বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

news24bd.tv/আলী