এশিয়া কাপের আয়োজক হতে পারে বাংলাদেশ
এশিয়া কাপের আয়োজক হতে পারে বাংলাদেশ

সংগৃহীত ছবি

এশিয়া কাপের আয়োজক হতে পারে বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক

শ্রীলঙ্কায় চলছে লঙ্কাকাণ্ড। অর্থনৈতিক সমস্যায় জর্জরিত শ্রীলঙ্কায় গণআন্দোলনের মুখে পদত্যাগ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী রাজাপাকসে। রনিল বিক্রমাসিংহে নতুন প্রধানমন্ত্রী হলেও রাষ্ট্রপতি গোটাবায়ারের পদত্যাগের দাবি উঠেছে সর্বমহল থেকে। কারফিউ ভেঙে রাজপথে নেমেছে জনতা।

চলতি বছরের ২৭ আগস্ট থেকে ১১ সেপ্টেম্বর ভারত মহাসাগরের এই দ্বীপরাষ্ট্রতে আয়োজিত হওয়ার কথা এবারের এশিয়া কাপ। তবে চলমান অস্থিরতার ফলে এই মহাদেশীয় টুর্নামেন্ট আদৌ দেশটিতে আয়োজন করা সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে এখন জল্পনা-কল্পনা চলছে।

অথনৈতিক ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে এশিয়া কাপ ক্রিকেট আয়োজনের স্বত্ত্ব হারাতে পারে শ্রীলঙ্কা এই টুর্নামেন্ট সরে আসতে পারে বাংলাদেশে। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সূত্রের বরাত দিয়ে ক্রিকেট ডটকম এমনই দাবি করেছে।  

সূত্রের মতে, শ্রীলঙ্কা আয়োজন করতে না পারলে আসরটি বাংলাদেশেই হবে। কারণ গরমের কারণে আগস্ট-সেপ্টেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আসরটি আয়োজন করার কঠিন হবে।   

ওই সূত্র বলেছেন, এসিসি শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। শ্রীলঙ্কায় আসর আয়োজন সম্ভব না হলে বাংলাদেশ হতে পারে বিকল্প। আগস্টের শেষে এবং সেপ্টেম্বরের শুরুতে আরব আমিরাত অবশ্যই বিকল্প ভৈন্যু হবে না। ওদিকে রাজনৈতিক বৈরি সম্পর্কের কারণে পাকিস্তান এশিয়া কাপ খেলতে ভারতে যাবে না। আগামী বছরের বিশ্বকাপ নিয়েই তালবাহানা আছে তাদের। ভারতও আপাতত পাকিস্তান যাওয়ার বিষয়ে কিছু ভাবছে না। সেজন্য ভারত বা পাকিস্তানের ভেন্যু হওয়ার সম্ভাবনা নেই।  

বাংলাদেশ এশিয়া কাপ আয়োজনে দারুণ সফল। ২০১২ থেকে ২০১৬ সালে টানা তিনটি এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হয় ঢাকায়। ২০১৮ সালে ওয়ানডে এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হয় আরব আমিরাতে। যে টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলে বাংলাদেশ ও ভারত। ২০২২ সালের টুর্নামেন্টটি ঢাকায় হলে চমক দেখাতে পারে স্বাগতিকরা। ভেন্যু নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকলেও টুর্নামেন্টের দিনক্ষণ ঠিক হয়ে আছে।

২০২১ এশিয়া কাপ পাকিস্তান স্বাগতিক হওয়ার কথা ছিল। তবে ভারতের পাকিস্তানে খেলতে অনীহা থাকায় টুর্নামেন্টের নতুন আয়োজক হয় শ্রীলঙ্কা। গত বছরই শ্রীলঙ্কায় এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তবে দেশটিতে তখন করোনার প্রকোপ বাড়তে থাকায় আসরটি পিছিয়ে এই বছরে চলে আসে। দেশটিতে চলমান অস্থিরতার কারণে আরও একবার অনিশ্চয়তার মুখে পড়ে গেল এশিয়া কাপ।  

news24bd.tv/আলী