দেশের ১১ অঞ্চলে ৮০ কি.মি. বেগে ঝড়ের আভাস
দেশের ১১ অঞ্চলে ৮০ কি.মি. বেগে ঝড়ের আভাস

দেশের ১১ অঞ্চলে ৮০ কি.মি. বেগে ঝড়ের আভাস

অনলাইন ডেস্ক

কয়েক দিনের তীব্র গরমের পর দেশের কোথাও কোথাও শুরু হয়েছে বৃষ্টি। ফলে স্বস্তি ফিরেছে জনমনে। এরই মধ্যে শনিবার (২১ মে) রাতে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, রাজধানী ঢাকাসহ দেশের ১১টি অঞ্চলে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের সঙ্গে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়োহাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ ছাড়াও এসব এলাকার নৌবন্দরসমূহকে ২ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে আজ শনিবার সন্ধ্যার পর রাজধানীসহ দেশের বিভিন্নস্থানে দমকা, ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে বজ্রসহ বৃষ্টি হয়েছে। এর আগে রাজধানীতে প্রায় সারাদিনই আকাশ মেঘলা ছিল। তবে গতকাল রাতে এবং আজ সকালেও বৃষ্টি হয়েছিল। এরপর বিকেলের দিকে এক পষলা বৃষ্টি হয়।

আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, যশোর, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০-৮০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরসমূহকে ২ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এ ছাড়া দেশের অন্যত্র পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি/বজ্ৰবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরসমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এক পূর্বাভাসে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, মার্তাবান উপসাগর ও তৎসংলগ্ন মিয়ানমারে অবস্থানরত নিম্নচাপটি উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ও দুর্বল হয়ে উত্তরপশ্চিম থাইল্যান্ড ও তৎসংলগ্ন মিয়ানমার এলাকায় প্রথমে সুস্পষ্ট লঘুচাপ, পরবর্তীতে লঘুচাপে পরিণত হয়ে পরিশেষে গুরুত্বহীন হয়ে পড়ে। লঘুচাপের বর্ধিতাংশ বিহার থেকে পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

আগামীকাল রোববার (২২ মে) সন্ধ্যা পর্যন্ত ঢাকা, খুলনা, বরিশাল চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে প্রবল বিজলিসহ বৃষ্টি/বজ্র বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি (২২-৪৩ মি. মি.) থেকে ভারী (৪৪-৮৮ মি. মি.) বর্ষণ হতে পারে।

শনিবার দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে সীতাকুণ্ডে ৬৩ মিলিমিটার। ঢাকায় ৫৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে সাতক্ষীরায় ৩৪ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩০ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

news24bd.tv তৌহিদ