বাবার পর এবার ছেলেরও বাঘের আক্রমণে মৃত্যু
বাবার পর এবার ছেলেরও বাঘের আক্রমণে মৃত্যু

সংগৃহীত ছবি

বাবার পর এবার ছেলেরও বাঘের আক্রমণে মৃত্যু

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে মো. কাওছার গাইন (২৮) নামে এক মৌয়ালের মৃত্যু হয়েছে। মধু সংগ্রহ করতে গেলে শনিবার বিকেল ৩টার দিকে পশ্চিম সুন্দরবনের নোটাবেকী খেজুরদানা এলাকায় তিনি বাঘের শিকারে পরিণত হন। কাওছার গাইন সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার খলিশাবুনিয়া গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাক গাইনের ছেলে। তার একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

কাওছারের সহযোগী মোশারফ গাইন ও আলম হোসেন জানান, ১৬ দিন আগে বুড়িগোয়ালীনি স্টেশন থেকে অনুমতি নিয়ে তারা ১৩ জন দুটি দলে বিভক্ত হয়ে সুন্দরবনে যান। শনিবার বিকেলে গাছের নিচে দাঁড়িয়ে মধু ধরার সময় একটি বাঘ কাওছারের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। সহযোগীরা একত্রিত হওয়ার আগেই বাঘটি কাওছারকে টেনে বনের গভীরে নিয়ে যায়। এরপর শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তল্লাশি চালিয়েও তার মরদেহ আর পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় ইউনিয়র পরিষদ (ইউপি) সদস্য আবু হাসান জানান, তার গ্রামের মোশারফ, আলম, সাইফুল মোড়ল ও আব্দুল মাজেদদের সঙ্গে মধু কাটতে গিয়ে বাঘের কবলে পড়েছেন কাওছার। তার মরদেহ উদ্ধারে ব্যাপারে বনকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে।

কাওছারের বাবা আব্দুর রাজ্জাকেরও ১৩ বছর আগে বাঘের আক্রমণে মৃত্যু হয়েছিল বলে জানিয়েছেন এ ইউপি সদস্য।

সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক এমএ হাসান জানান, বাঘের আক্রমণে মৌয়ালের মৃত্যুর বিষয়টি তারা রোববার সকালে জানতে পেরেছেন। বনবিভাগের অনুমতি নিয়ে সুন্দরবনে প্রবেশ করায় নিহত জেলের পরিবারকে বন আইনের যাবতীয় আর্থিক সুবিধা দেওয়া হবে।

news24bd.tv/কামরুল