আপনি কি অফিস সিনড্রোমে ভুগছেন?
আপনি কি অফিস সিনড্রোমে ভুগছেন?

সংগৃহীত ছবি

আপনি কি অফিস সিনড্রোমে ভুগছেন?

আতাউর রহমান কাবুল

অফিস বা কর্মক্ষেত্রে দীর্ঘক্ষণ একই অবস্থানে থাকা এবং কম্পিউটার স্ক্রিনের সামনে দীর্ঘক্ষণ বসে কাজ করার ফলে ঘাড়, কাঁধ এবং পেছনের পেশির প্রদাহসহ নানা উপসর্গ দেখা দেয়। এসবের সমন্বিত রূপকে অফিস সিনড্রোম বলা হয়। বেশির ভাগ মানুষ এসব বিষয়ে সচেতন নয়। অথচ এসব সমস্যা গুরুতর স্বাস্থ্যহানির দিকে নিয়ে যেতে পারে, বিশেষ করে পেশি, চোখ ও মেরুদণ্ডের জন্য বেশ ক্ষতিকর হতে পারে।

উপসর্গ
পিঠ, ঘাড়, কোমর, কাঁধ, কবজি, হাঁটুসহ বিভিন্ন জয়েন্টে ব্যথা, পেশির ব্যথা, মাথা ব্যথা, আঙুল, বাহু এবং পায়ের অসাড়তা, চোখে শুকনো ভাব আসা, চোখ দিয়ে পানি পড়া, ঝাপসা দেখা, অস্থিরতা, বিষণ্নতা, অনিদ্রা, ক্লান্তি ইত্যাদি।

অফিসের জন্য প্রযোজ্য
কম্পিউটার স্ক্রিন এবং চোখের উচ্চতা যাতে একই স্তরে থাকে, সেভাবে টেবিল সাজান। খুব বেশি উঁচু বা বেশি নিচু অবস্থানে কম্পিউটার রাখবেন না।
চেয়ারের উচ্চতা এমন হবে যাতে বসলে পিসির স্ক্রিন ও চোখ একই সমান্তরালে থাকে। খুব কম বা খুব বেশি উঁচু-নিচু হওয়া উচিত নয়।
অফিসে ল্যাপটপে কাজ করতে হলে আলাদা মাউসের ব্যবস্থা রাখুন, আলাদা মাউস দিয়ে ল্যাপটপ চালান।
সম্ভব হলে কাঠের চেয়ার ব্যবহার না করে অর্গানোমিক চেয়ার ব্যবহার করুন।

পরিবর্তন করুন নিজের আচরণ
দীর্ঘ সময় ধরে কম্পিউটারে বসে কাজ করবেন না। সম্ভব হলে প্রতি ২০-৩০ মিনিট অন্তর অন্তর চেয়ার ছেড়ে উঠুন। বসার ভঙ্গি বা কাজের অবস্থান পরিবর্তন করুন, এদিক-ওদিক ঘুরে এসে আবার কাজ শুরু করুন।
চেয়ারে পিঠ ঠেকিয়ে সোজা হয়ে বসে বা পিঠ সোজা রেখে কাজ করুন; হেলান দিয়ে নয়।
প্রতি ঘণ্টা পর পর বাহু, হাত, ঘাড়, কবজি এবং পায়ের পেশিগুলো প্রসারিত করুন; পেশি আলগা করতে কিছু ব্যায়াম করুন।
৯০ ডিগ্রি অ্যাঙ্গেলে হাঁটু ভাঁজ করে মেঝের সমতলে পা রেখে পিসিতে কাজ করুন। ক্রস করে এক পায়ের ওপর অন্য পা রাখবেন না, দেহের ওজন যেন উভয় পায়ে সমানভাবে পড়ে।
চোখ ভালো রাখতে মাঝেমধ্যে চোখে পানির ঝাপটা দিন। কাজের মাঝে মাঝে এদিক-সেদিক তাকান।
কাজের মাঝে মাঝে পর্যাপ্ত পানি পান করুন। দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে কাজ করবেন না।

(দ্য হেলথ সাইট অবলম্বনে)  

সম্পর্কিত খবর