পাকিস্তানকে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড
পাকিস্তানকে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড

সংগৃহীত ছবি

পাকিস্তানকে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড

অনলাইন ডেস্ক

১৭ বছর পর পাকিস্তান সফরে আসা ইংল্যান্ড শেষটা রাঙাল সিরিজ জয়ে। আজ লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে সিরিজের সপ্তম ও শেষ টি২০ ম্যাচে স্বাগতিকদের ৬৭ রানে হারিয়ে ৪-৩ ব্যবধানে সিরিজ নিশ্চিত করে হাসিমুখে পাকিস্তান সফর শেষ করল ইংলিশরা।

লাহোরে শেষ ম্যাচ খেলতে নামার আগে সিরিজে ছিল ৩-৩ এর সমতা। শেষ ম্যাচ জিতলেই সিরিজ নিশ্চিত, এমন সমীকরণ মেলাতে টস জিতে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম।

তবে তার সিদ্ধান্ত বুমেরাং হয়ে আসে স্বাগতিকদের জন্য।

আগে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড দাবিদ মালান এবং হ্যারি ব্রুকের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে ২০৯ রানের বড় পুঁজি পায়। সেই রান তাড়া করতে নেমে পাকিস্তান শুরু থেকেই ধুঁকছিল। শেষ পর্যন্ত তাদের রানের চাকা থামে ৮ উইকেটে ১৪২ রান তুলে।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাকিস্তান শুরুতেই পড়ে বিপদে। মাত্র ৫ রানেই হারায় দলের দুই ওপেনার এবং ব্যাটিং অর্ডারের নির্ভরযোগ্য দুই তারকা বাবর আজম এবং মোহাম্মদ রিজওয়ানকে। প্রথম ওভারেই ৪ রান করা বাবর বিদায় নেন ক্রিস ওকসের বলে ব্রুককে ক্যাচ দিয়ে। পরের ওভারে রিজওয়ান বিদায় নেন রিচি টপলির বলে বোল্ড হয়ে। ১ রান আসে তার ব্যাট থেকে।

এরপর শান মাসুদ উইকেটের একপ্রান্ত আগলে খেলতে থাকলেও, বাকিরা যোগ দেন আসা-যাওয়ার মিছিলে। ইফতিখার আহমেদ (১৯ রান) এবং খুশদিল শাহ (২৭ রান) যদিও একটু চেষ্টা করেছিলেন বটে, তবে আসিফ আলী (৭ রান), মোহাম্মদ নেওয়াজ (৯ রান) দাঁড়াতেই পারেননি ইংলিশ পেসারদের সামনে।

শেষ পর্যন্ত শানের ৫৬ রানের ইনিংসটি স্রেফ হারের ব্যবধানই কমায়। ম্যাচে ইংল্যান্ডের সেরা বোলার ওকস। ২৬ রানে ৪ উইকেট নেন তিনি। ২২ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন ডেভিড উইলি। একটি করে উইকেট শিকার করেন রিচি টপলি, আদিল রশিদ এবং মঈন আলী।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড উড়ন্ত সূচনা পায় ফিলিপ সল্ট এবং অ্যালেক্স হেলসের কল্যাণে। যদিও দুজনের কেউই ইনিংস বড় করতে পারেননি। সল্ট দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউট হন ২০ রান করে। তার আগে হেলস (১৮ রান) বিদায় নেন মোহাম্মদ হাসনাইনের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পা দিয়ে।

দলীয় ৩৯ রানে এ দুই ওপেনারের বিদায়ের পর খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসে ইংল্যান্ড। মালান দেখান তার ব্যাটিং ভেলকি। বেন ডাকেট দারুণ শুরুর পর ৩০ রান করে রানআউট হয়ে সাজঘরে ফিরলেও, পাঁচে নামা ব্রুককে নিয়ে পাকিস্তানি বোলারদের ওপর আরও চড়াও হন মালান।

ইনিংস শেষ করেই মাঠ ছাড়েন মালান এবং ব্রুক। ২৯ বলে ৪ ছক্কায় ব্রুক করেন ৪৬ রান। মালান ৩ ছয় আর ৮ চারের মারে ৪৭ বলে অপরাজিত থাকেন ৭৮ রানের ইনিংস খেলে। দারুণ এই ইনিংসে ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েছেন মালান। আর সিরিজ সেরার খেতাব গেছে হ্যারি ব্রুকের কাছে।

news24bd.tv/সাব্বির