সয়াবিনের দাম কমলেও এখনই সুবিধা পাচ্ছেন না ভোক্তারা
সয়াবিনের দাম কমলেও এখনই সুবিধা পাচ্ছেন না ভোক্তারা

সংগৃহীত ছবি

সয়াবিনের দাম কমলেও এখনই সুবিধা পাচ্ছেন না ভোক্তারা

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীর বেশ কিছু এলাকার দোকানীরা জানিয়েছেন, বোতলজাত ও খোলা সয়াবিন তেলের দাম মঙ্গলবার থেকে কমার কথা থাকলেও খুচরা বাজারে তা কার্যকর হয়নি। আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে সয়াবিন তেল। ফলে দাম কমলেও এখনও সুবিধাবঞ্চিত ক্রেতারা।

দোকানিরা জানান, আগামী সপ্তাহ থেকে ভোক্তারা দাম কমার সুবিধা পাবেন।

কারণ দোকানী ও ডিলারদের বেশি দামে কেনা তেলের আগের মজুদ এখনও শেষ হয়নি। ফলে নতুন তেল আনতে পারছেন না তারা। এর ফলে বোতলজাত সয়াবিন তেল লিটার প্রতি বিক্রি হচ্ছে ১৯২ টাকা এবং ৫ লিটারের বোতল বিক্রি হচ্ছে ৯৪০ থেকে ৯৪৫ টাকায়। একই সঙ্গে খোলা সয়াবিন প্রতি লিটার ১৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ বিষয়ে দোকানীরা জানান, আগামী সপ্তাহ থেকে কম দামে তেল পাওয়া যাবে। শুধু তাই নয়, ডিলারদের কাছে যেমন তেল মজুদ রয়েছে, তেমনি দোকানীরাও সাত দিনের তেল মজুদ করে। ফলে এই মজুদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত নতুন তেল আনা সম্ভব না।

তবে ভোক্তাদের অভিযোগ, পণ্যের দাম বাড়ার সাথে সাথে দাম বাড়ান ব্যবসায়ীরা। কিন্তু দাম কমলে সেটা নিয়ে যত নিয়ম। এক্ষেত্রে সরকারের জরুরী হস্তক্ষেপও কামনা করেন তারা।

সোমবার (৩ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সয়াবিন তেলের দাম কমানোর কথা জানায় বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নতুন নির্ধারিত দামে বোতলজাত সয়াবিন তেল লিটারপ্রতি ১৪ টাকা ও খোলা সয়াবিন তেলের দাম লিটারপ্রতি ১৭ টাকা কমছে। প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলের নতুন দাম ১৭৮ টাকা এবং খোলা সয়াবিন তেলের নতুন ১৫৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়। নতুন দামে ৫ লিটারের বোতল ৮৮০ টাকা করা হয়।

এর আগে ১৬ মার্চ এনবিআর এর প্রজ্ঞাপনে ভোজ্যতেল আমদানি পর্যায়ে আরোপিত ১৫ শতাংশ ভ্যাট কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়। সে সময়ে এ নির্দেশের মেয়াদ ৩০ জুন পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়। পরে গেল ৩ জুলাই সে মেয়াদ বাড়িয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করে এনবিআর। ৩০ সেপ্টেম্বর ভোজ্যতেলের ভ্যাট অব্যাহতির মেয়াদ শেষ হয়েছে।

news24bd.tv/FA

এই রকম আরও টপিক