আগ্নেয়াস্ত্র নিষিদ্ধে জোরালো আহ্বান বাইডেনের
আগ্নেয়াস্ত্র নিষিদ্ধে জোরালো আহ্বান বাইডেনের

সংগৃহীত ছবি

আগ্নেয়াস্ত্র নিষিদ্ধে জোরালো আহ্বান বাইডেনের

অনলাইন ডেস্ক

কোনোভাবেই কমছে না যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর হামলা। গত সপ্তাহে ভার্জিনিয়া ও কলোরাড়োতে হামলায় ১১ জন নিহত হয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে মারাত্মক আগ্নেয়াস্ত্র নিষিদ্ধের জন্য ফের জোরালো আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

বৃহস্পতিবার ম্যাসাচুসেটসের ন্যান্টকেট দ্বীপে ফায়ারহাউস পরিদর্শন করেন বাইডেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘জানুয়ারিতে নতুন কংগ্রেস বসার আগে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ আইন পাস করার চেষ্টা করা হবে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এখনও আধা-স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র কেনার অনুমতি দিয়েছি এমন ধারণা ভুল। এটা শুধু অসুস্থতা।

বন্দুক প্রস্তুতকারকদের লাভ ছাড়া আর কোনো যুক্তি নেই এতে। আমি কিছু করার চেষ্টা করছি। অস্ত্র হামলা থেকে পরিত্রাণের উপায় খুঁজছি। ’

‘আমি চেষ্টা করতে যাচ্ছি। আমি হামলার অস্ত্র থেকে পরিত্রাণ পেতে চেষ্টা করতে যাচ্ছি,’ যোগ করেন তিনি।

গান ভায়োলেন্স আর্কাইভের তথ্য মতে, চলতি বছরে যুক্তরাষ্ট্রে ৬০০ এর বেশি বন্দুকধারীর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

গার্ডিয়ান বলছে, গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বেশ কয়েকটি বন্দুকধারীর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে রোববার ওকলাহোমার একটি গাঁজার খামারে চারজনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। আর গত শুক্রবার ভার্জিনিয়ার রিচমন্ডে এক মা ও তার চার শিশু সন্তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

দীর্ঘদিন ধরে বন্দুক সহিংসতা রোধে অস্ত্র আইনে পরিবর্তন করতে চাচ্ছেন বাইডেন। তবে তার এ চেষ্টা আরও কষ্টকর হবে, কারণ মধ্যবর্তী নির্বাচনে প্রতিনিধি পরিষদের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে রিপাবলিকানরা।

গত জুলাইয়ে ডেমোক্র্যাট নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি পরিষদে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল পাস হয়। তবে সেটি উচ্চকক্ষ বা সিনেটে গিয়ে আটকে যায়।

সবশেষ ১৯৯৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল পাস হয়। এই আইনের কার্যকারিতা শেষ হয় ২০০৪ সালে। ২০১৯ সালে ট্রমা এবং অ্যাকিউট কেয়ার সার্জারির জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় দেখা যায়, ১৯৯৪ সালে থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত বন্দুক সহিংসতার পরিমাণ কমে যায়।

news24bd.tv/মামুন