বিদেশি শিক্ষার্থীদের বৈধ কাজের সময় বাড়াচ্ছে যুক্তরাজ্য
বিদেশি শিক্ষার্থীদের বৈধ কাজের সময় বাড়াচ্ছে যুক্তরাজ্য

সংগৃহীত ছবি

বিদেশি শিক্ষার্থীদের বৈধ কাজের সময় বাড়াচ্ছে যুক্তরাজ্য

নূরে আরম রব্বানি

বিদেশে পড়তে যাওয়াদের দীর্ঘ সময় কাজ করার অনুমতি দেওয়ার কথা ভাবছে যুক্তরাজ্য সরকার। বর্তমানে বিদেশি শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার ফাঁকে সপ্তাহে ২০ ঘণ্টা পর্যন্ত কাজ করতে পারেন। এখন সেটা বাড়িয়ে ৩০ ঘণ্টা করা হচ্ছে। অর্থনীতি চাঙা করতেই এ উদ্যোগ নিচ্ছে ব্রিটিশ সরকার।

এতে খুশি প্রবাসী বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা।  

ব্রিটেনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে সাড়ে চার লাখ শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছেন। এর মধ্যে দুই–তৃতীয়াংশই ইইউর বাইরে থেকে আসা। এর মধ্যে ১ লাখ ৭০ হাজার থেকে ১ লাখ ৮৫ হাজার শিক্ষার্থী স্নাতক শেষ করবেন এ বছরই।

 

অর্থনীতিকে চাঙা করতে বিদেশি পড়ুয়াদের দীর্ঘ সময় কাজ করার অনুমতি দেওয়ার কথা ভাবছে যুক্তরাজ্য সরকার। আতিথেয়তা ও খুচরা ব্যবসার মতো ক্ষেত্রগুলোয় ঘাটতি মোকাবিলায় যুক্তরাজ্য বিদেশি শিক্ষার্থীদের আরও বেশি করে খণ্ডকালীন চাকরি নিতে উৎসাহিত করছে। শূন্য পদ পূরণের জন্য এমন উদ্যোগ নেওয়া হতে পারে বলে মনে করছে বিশ্লেষকরা।

মাইগ্রেশন ওয়াচ ইউকের চেয়ারম্যান এএলপি মেহমেত বলেন, সরকার ব্রিটেনে পড়তে আসা বিদেশি শিক্ষার্থীদের কাজের সুবিধা দিয়েছে। যুক্তরাজ্যের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে আমার ধারণা। যদি খণ্ডকালীন কাজের সুযোগ পেয়ে থাকে। তবে পূর্ণ সময় পেলে আরও ভালো।

প্রস্তাবটি পাশ হলে, বিদেশি শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার ফাঁকে সপ্তাহে কাজের সুযোগ পাবেন ৩০ ঘণ্টা। ব্রিটিশ সরকারের এমন প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছে প্রবাসী বাংলাদেশিরাও।

অবৈধ অভিবাসন ঠেকাতে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুয়েলা ব্র্যাভারম্যানের প্রস্তাবের মধ্যে শিক্ষার্থীদের সপ্তাহের কর্মঘণ্টা বাড়ানোর পরিকল্পনায় বেকায়দায় ফেলেছে ব্রিটিশ সরকারকে।

news24bd/আজিজ