মোখার চোখ রাখাইনের দিকে,  ঘরবাড়ি ছাড়ছে লাখ লাখ বাসিন্দা

সংগৃহীত ছবি

মোখার চোখ রাখাইনের দিকে,  ঘরবাড়ি ছাড়ছে লাখ লাখ বাসিন্দা

অনলাইন ডেস্ক

উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে সুপার সাইক্লোন মোখা। রোববার (১৪ মে) বিকেলে এটির মূল কেন্দ্র মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের সিত্তওয়ের কাছে আঘাত হানতে পারে বলে মিয়ানমারের আবহাওয়া কেন্দ্র সতর্ক করেছে। এরই মধ্যে মোখার প্রভাবে উপকূলে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। সম্ভাব্য ক্ষতি এড়াতে কয়েক লাখ রাখাইন নাগরিক তাদের বাড়িঘর ছেড়েছেন।

মিয়ানমারের গণমাধ্যম ইরাবতি এসব তথ্য জানাচ্ছে।  

বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা বলছে, ঝড়টির কেন্দ্রে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠছে।  

মিয়ানমারের সিটওয়ে, কিয়াউকফিউ, মংডু, রাথেডাউং, মাইবোন, পাউকতাও এবং মুনাং শহরে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে।  

আরাকান আর্মির (এএ) মুখপাত্র খাইং থু খা বলেছেন, বুধবার থেকে তারা প্রায় এক লাখ ২ হাজার রাখাইন বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়েছে।

তারা দুর্গতাদের স্বাস্থ্যসেবা ও খাদ্য সরবরাহ করেছে। তিনি আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে ঝড়ের পরে সহায়তার আহ্বান জানিয়েছেন।  

ওয়াই হিন অং নামের একজন ত্রাণ সহায়তাকারীর বরাত দিয়ে ইরাবতির খবরে বলা হয়েছে, সিটওয়ে শহরের জনসংখ্যা এক লাখ। এই শহরের প্রায় ৭৫ শতাংশ মানুষ তাদের বাড়ি ছেড়েছে।  

সিটওয়ে এবং আশেপাশের গ্রাম থেকে অন্তত ১৫ হাজার মানুষ পাহাড়ে আশ্রয় নিয়েছে। সিত্তওয়ের বাসিন্দারা শহরের আর জেটে পাহাড়ের একটি মঠে আশ্রয় নেয়।  

ওয়াই হিন অং ইরাবতিকে বলেন, খাদ্য, ওষুধ ও টয়লেটের জরুরি প্রয়োজন রয়েছে। কোনো আন্তর্জাতিক সংস্থা আমাদের সাথে যোগাযোগ করেনি।  

স্বেচ্ছাসেবক উ আয় অং এর মতে, উপকূলীয় রাথেদাউং শহরের প্রায় ২ হাজার বাসিন্দা সায়তি পাইন গ্রামের মঠ এবং স্কুলে আশ্রয় নিচ্ছেন।

পাউকটাও টাউনশিপের একজন বাসিন্দা বলেন, বৃদ্ধ ও শিশুদের সরিয়ে নেওয়া এবং খাবার বিতরণে নৌকার ব্যবহার করা হচ্ছে।

news24bd.tv/আইএএম

এই রকম আরও টপিক