অভিবাসীর সংখ্যা কমাবে অস্ট্রেলিয়া

সংগৃহীত ছবি

অভিবাসীর সংখ্যা কমাবে অস্ট্রেলিয়া

অনলাইন ডেস্ক

অকার্যকর অভিবাসন প্রক্রিয়াকে মেরামত করার জন্য আগামী দুই বছরে অভিবাসী গ্রহণের সংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনার ঘোষণা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার। ২০২৫ সাল থেকে অস্ট্রেলিয়া প্রতিবছর মোট ২ লাখ ৫০ হাজার অভিবাসী নেবে। নতুন এই নিয়মের মাধ্যমে শিক্ষার্থী এবং নিম্ন দক্ষতার শ্রমিকদেরকে ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রেও কড়াকড়ি আরোপ করা হবে।

অস্ট্রেলিয়ায় বিদেশীদের অভিবাসন সর্বকালের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

দক্ষ শ্রমিকের অভাব থাকা সত্ত্বেও দেশটি দক্ষ জনশক্তিকে আকৃষ্ট করতে বরাবরই ব্যর্থ হয়ে এসেছে।

সোমবার (১১ ডিসেম্বর) এক মিডিয়া ব্রিফিংয়ে দশ বছর মেয়াদি নতুন অভিবাসন নীতি ঘোষনা করার পর দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্লেয়ার ও নিল বলেন, পূর্ববর্তী সরকার আমাদের অভিবাসন নীতিকে ধ্বংস করে ফেলেছে। পূর্বে আমাদের অভিবাসন নীতি ধীর, জটিল এবং অকার্যকর ছিলো। তাই এই নীতিতে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

বর্তমান অভিবাসন নীতিতে যেসকল নতুন বিষয় সংযুক্ত করা হয়েছে সেগুলো হলো- আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের জন্য উচ্চ আইএলটিএস-টোফেল স্কোর এবং দ্বিতীয় ভিসার জন্য আবেদনকারীদের জন্য কঠিন যাচাই-বাছাই। যারা একবার ভিসা পাওয়ার পর পুনরায় ভিসার জন্য আবেদন করবেন তাদেরকে প্রমাণ করতে হবে যে তাদের অর্জিত শিক্ষা তাদের কর্মজীবনে অগ্রগতিতে সহায়তা করবে।

২০২৩ সালের জুন মাস পর্যন্ত প্রায় ৫ লাখ ১০ হাজার অভিবাসী অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ করেছেন। দেশটিতে বর্তমানে মোট ৬ লাখ ৫০ হাজার আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীর মধ্যে বেশিরভাগই দ্বিতীয় ভিসায় অবস্থান করছেন।

নতুন নীতি অনুযায়ী উচ্চ দক্ষতার কর্মীদের জন্য ভিসা পাওয়ার পথকে আরও সুগম করা হয়েছে। ও নিলের মতে, নতুন ভিসানীতির মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া প্রয়োজনীয় সংখ্যক কর্মীকে আকৃষ্ট করতে পারবে এবং যারা দেশটিতে পড়াশুনা কিংবা কাজ করছেন তাদের প্রতি করা অবিচারকে কমাতে সাহায্য করবে।

সূত্রঃ বিবিসি 

news24bd.tv/ab

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়