আলফাডাঙ্গায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত একজনের মৃত্যু

আলফাডাঙ্গায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত একজনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় গ্রাম্য দলাদলিকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুরুতর আহত আজিজার শেখ (৪৮) নামে একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। শুক্রবার (২১ জুন) বিকেলের দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এর আগে গত বুধবার (১৯ জুন) রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাইরপাড়া গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।  আলফাডাঙ্গা থানার ওসি মো. সেলিম রেজা আজিজার শেখের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনায় রিপন সরদার (৩০) নামে গুরুতর আহত আরো একজন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

থানা ও এলাকা সূত্রে জানা যায়, জেলার আলফাডাঙ্গা সদর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান একেএম আহাদুল হাসানের সমর্থক বারইপাড়া গ্রামের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ঝুনু মিয়ার সঙ্গে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন বুলবুলের সমর্থক একই গ্রামের ইকরাম মিয়ার মধ্যে গ্রাম্য দলাদলি নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে কয়েক বছর ধরে দুই পক্ষের মধ্যে হামলা-মামলার ঘটনা চলমান রয়েছে।

গত ৪ বছর আগে হতাহতরা ইকরাম মিয়ার ছেলের ওপর হামলা চালায়। সেই হামলায় ইকরাম মিয়ার ছেলে ইমরান মিয়া মারাত্মক আহত হয়। সেই বিরোধের জেরে গত বুধবার রাতের দুই পক্ষের সংঘর্ষে ইউপি সদস্য ঝুনু মিয়ার পক্ষের আজিজার শেখ ও রিপন সরদার নামে দুই ব্যক্তি গুরুতর জখম হয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজিজার শেখ শুক্রবার বিকেলে মারা যান।

গুরুতর আহত রিপন সরদারও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ হামলায় নারীসহ দুই পক্ষের আরো তিনজন আহত হয়ে বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থক গুরুতর আহত রিপন সরদারের বাবা বাদশা সরদার বলেন, ‘আমার ছেলে রিপন সরদার গ্রামের কিছু লোকজন নিয়ে বাড়ির সামনে পাকা সড়কের পাশে গল্প করছিল। ইকরাম মিয়ার ছেলেরা ও হাসেম ফকিরের ছেলেরা ১০-১২ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। ’

বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থক ইকরাম মিয়ার স্ত্রী জুলেখা বেগম জানান, আমার স্বামী ও তিন ছেলে মহিষাগোপ যাওয়ার পথে রিপন সরদার ও আজিজার শেখরা তাদের ওপর হামলা চালায়।

হামলায় আমার ছেলে ইমরান আহত হয়ে কাশিয়ানী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন বুলবুল জানান, এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। প্রকৃতি দোষীদের শাস্তির দাবি করছি।  

আহত ব্যক্তির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে আলফাডাঙ্গা থানার ওসি মো. সেলিম রেজা বলেন, ‘সংঘর্ষের ঘটনায় আহত আজিজার শেখ নামে এক ব্যক্তি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়ার খবর পেয়েছি। এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে ঘটনার পর থেকেই অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। থানায় এখনও কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

news24bd.tv/DHL

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়