চলতি মাস থেকেই হয়তো আর পরতে হবেনা মাস্ক
চলতি মাস থেকেই হয়তো আর পরতে হবেনা মাস্ক

চলতি মাস থেকেই হয়তো আর পরতে হবেনা মাস্ক

Other

চলতি মাস থেকেই ব্রিটেনে হয়তো আর পড়তে হবেনা মাস্ক। করোনা সংক্রমণের আশংকায় মানতে হবে না সামাজিক দূরত্বের নিয়মও। সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে এমনই আশার বাণী শুনালেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। করোনা জয়ী এই নেতা বলছেন, টিকা কার্যক্রমে সফল হওয়ায় এখনই সময় দেশকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার।

করোনা মহামারী মোকাবেলায় বিশ্বে সর্বপ্রথম ব্রিটেনই দিয়েছিলো কোভিড ভ্যাকসিনের অনুমোদন। ৭ মাস আগে গেল ডিসেম্বরের ২ তারিখ ফাইজার টিকাকে অনুমোদন দিয়েই শুরু হয় তাদের করোনার বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধ। তারপর একে একে মডার্না, অক্সফোর্ড ও জনসন এন্ড জনসনের টিকাকেও যোগ করা হয় হাতিয়ার হিসেবে। আর তারই ইতিবাচক ফলাফল দেখতে পেলো দেশটির বাসিন্দারা।

গণটিকাদান কার্যক্রমে ব্যাপকভাবে সফলতা পেয়েছে যুক্তরাজ্য। ভ্যাকসিন গ্রহণের পর শনাক্তের হার বেশি থাকলেও কমে এসেছে করোনা রোগীদের মৃত্যু। আর এমন পরিস্থিতি দেখেই আত্মবিশ্বাসী হয়ে জুলাইয়েই ব্রিটেনকে মুক্ত জীবনের আশা দেখালেন প্রধানমন্ত্রীর বরিস জনসন। ১২ জুলাই সর্বশেষ পরিস্থিতি দেখে ১৯ জুলাই থেকে সকল করোনা বিধিনিষেধ তুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

মাস্ক পড়ার বিষয়ে বরিস বলেন, বাধ্যতামূলক আইন না থাকলেও জনসমাগমে ভদ্রতাবশতই মাস্ক পড়বেন তিনি। তবে ভবিষ্যতেও ভাইরাসটি নিয়ে সাবধান থাকতে দেন সতর্কবার্তা।

"যত সামনে এগিয়ে যাবো আমরা, অবশ্যই সকল ডেটার ওপর নজর রাখবো। সবসময়েই কিন্তু আমরা বলেছিলাম করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের কথা। ফলে সামনে আরও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে পারে এবং প্রাণহানিও বৃদ্ধি পেতে পারে। সতর্ক থাকতে হবে আমাদের। "

ব্রিটেনের বর্তমান পরিস্থিতি এবং আত্মবিশ্বাসী সিদ্ধান্ত আবারও এটাই প্রমান করে, ভ্যাকসিন গ্রহনের কোনো বিকল্প নেই চলমান মহামারী মোকাবেলায়।

আরও পড়ুনঃ

ভারত থেকে আসছে অক্সিজেন

করোনা থেকে সুস্থ হয়েও মৃত্যুবরণ করলো বাংলাদেশি যুবক

১ জুলাই সংক্রমনের হার ছিল ২৫.৯০ ; আর গতকাল ২৯.৩০! 

ফোবানা সম্মেলনকে সফল করার লক্ষ্যে স্বাগতিক কমিটির ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা

news24bd.tv/এমিজান্নাত