মোংলা বন্দরে চারদিন ধরে আটকা ২ বিদেশি জাহাজ
মোংলা বন্দরে চারদিন ধরে আটকা ২ বিদেশি জাহাজ

মোংলা বন্দরে চারদিন ধরে আটকা ২ বিদেশি জাহাজ

Other

মোংলা বন্দরের আউটারবারে (বহি:নোঙ্গরে) নব্যতা সংকটে পণ্য নিয়ে গত ৪ দিন ধরে পশুর চ্যানেলের হিরণপয়েন্ট এলাকায় আটকে আছে পানামা পতাকাবাহী ‘এমভিসিএস ফিউচার’ ও টুভ্যালু’র পতাকাবহী ‘এমভি পাইনিয়র ড্রিম’ নামের দুটি বিদেশি জাহাজ। আউটারবারে ড্রেজিং হওয়ার পরও পলি পড়ে গভীরতা কমে যাওয়ায় নাব্যতা সংকটের কারণে বিদেশি এই জাহজ

দুটি মোংলা বন্দর জেটিতে প্রবেশ করতে পারেনি। এখন পণ্য খালাস করে গভীরতা কমিয়ে জাহাজ দুইটি ৭১ নটিক্যাল মাইল পশুর চ্যানেলের যতোটা সম্ভব উপরে নিয়ে আসার চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট দুটি জাহারের শিপিং এজেন্টরা।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, গত ৩০ সেপ্টেম্বর প্রায় ২৩ হাজার মেট্টিক টন ইউরিয়া সার নিয়ে নয় দশমিক তিন মিটার গভীরতার পানামা পতাকাবাহী এমভি সিএস ফিউচার জাহাজ মোংলা বন্দরের আউটারবার হিরণপয়েন্টের পাইলট স্টেশনে নোঙ্গর করে।

এরপর ১ অক্টোবর প্রায় ১১ হাজার মেট্টিক টন সিরামিক পণ্য নিয়ে আসে টুভ্যালু’র পতাকাবাহী আরেকটি বিদেশি জাহাজ এমভি পাইনিয়র ড্রিম। নাব্যতা কম থাকায় জাহাজ দুইটি বন্দরের পশুর চ্যানেল দিয়ে জেটিতে আসতে পারেনি।

মোংলা বন্দরের আউটারবারে নব্যতা সংকটে আটকে থাকা জাহাজ দুইটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট এফএমএস মেরিটাইমের ব্যবস্থাপক মো. বিপ্লব ও পার্ক শিপিংয়ের স্বত্বাধিকারী মো. হুমায়ুন কবীর পাটোয়ারী জানান, শত শত কোটি টাকা খরচ করে আউটারবারে ড্রেজিং করার পর সাড়ে ৯ মিটার ড্রাটপ্টের জাহাজ প্রবেশ করতে পাববে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ ঘোষণা দিলেও এখন সাড়ে ৯ মিটারেরও কম ড্রাটপ্টের এই জাহাজ দুইটি নব্যতা সংকটে পণ্য নিয়ে গত ৪ দিন ধরে আউটারবারে আটকে রয়েছে। শত শত কোটি টাকা খরচ করে আউটারবারে ড্রেজিং করে লাভ কি হলো ? আমাদের এখন মোটা অংকের টাকা ডেমারেজ (ক্ষতি) দিয়ে লাইটার পাঠিয়ে সেখান থেকে পণ্য খালাস করতে হবে।

আরও পড়ুন


শীর্ষ সাইবার সন্ত্রাসীদের ভয়ংকর অপতৎপরতা

বিএনপি এবার ভুল করবে না: মেজর হাফিজ

পুলিশ-আদালত-সরকার একসাথে নিষ্পেষণ চালাচ্ছে: গয়েশ্বর

সব বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে এ মাসেই

লাঠিসোটা লাগবে না, জনস্রোতে সরকারের পতন সম্ভব: নুর

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়রকে আ.লীগের শোকজ


 

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখরউদ্দীন বলেন, বন্দরের আউটারবারে ড্রেজিং করার পর ওই জায়গায় আবার পলি পড়ে ভরাট হয়েছে। এরপর বর্ষা মৌসুমে আরও খারাপ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আউটারবারে ড্রেজিং করতে একটি হোপার ড্রেজার সেখানে পাঠানো হয়েছে। আর জাহাজ ঢুকতে না পারার বিষয়ে তিনি বলেন, এটা মেজর সমস্যা না, ওখানে লাইটার দিয়ে কিছু পণ্য খালাস করে তারপর অনায়াসেই বন্দরে জাহাজ দুইটি ঢুকতে পারবে।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী (সিভিল ও হাইড্রোলিক) ও আউটারবার ড্রেজিংয়ের প্রকল্প পরিচালক (পিডি) মো. শওকত আলী বলেন, প্রায় ৭০০ কোটি টাকা ব্যয়ে মোংলা বন্দরের আউটারবারের ১১ কিলোমিটার নদী পথের খনন কাজ শেষ হয়েছে ২০২০ সালের ডিসেম্বরে। এখন সেখানে কিছুটা পলি পড়ে গভীরতা কমে যাওয়ার কারণে এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। তবে দুইদিন ধরে সেখানে হোপার ড্রেজার দিয়ে ড্রেজিং শুরু করা হয়েছে।

news24bd.tv/ তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর

;