আইসিডিডিআর’বির ইতিহাসে সর্বোচ্চ রোগী ভর্তি!
আইসিডিডিআর’বির ইতিহাসে সর্বোচ্চ রোগী ভর্তি!

সংগৃহীত ছবি

আইসিডিডিআর’বির ইতিহাসে সর্বোচ্চ রোগী ভর্তি!

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীতে ডায়রিয়া ও কলেরার প্রকোপ রেকর্ড ছাড়িয়ে যাচ্ছে। রাজধানীর আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বা আইসিডিডিআর’বিতে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালের বাইরেও টানানো হয়েছে দুটি তাঁবু। আক্রান্তের বেশিরভাগই বয়স্ক মানুষ।  তবে শিশুদের সংখ্যাও নেহাত কম নয়।

 গত মঙ্গলবার আইসিডিডিআর’বির ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১২৭২ জন রোগী ভর্তি হয়েছে এই হাসপাতালে। অতিরিক্ত গরম আর বাইরের দূষিত পানি ও অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার কারণেই এমন পরিস্থিতি বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। আইসিডিডিআর’বির ইতিহাসে এর আগে কখনও এতো রোগী ভর্তি হয়নি বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডায়রিয়া বা কলেরায় আক্রান্তদের অনেকে কয়েক ঘণ্টায় বা অর্ধেক দিনেই দুর্বল হয়ে পড়ছেন। তাই অবস্থা গুরুতর বা আশঙ্কাজনক মনে হলেই আইসিডিডিআরবি’তে নিয়ে আসার পরামর্শ দেন তারা। অন্যথায় নিকটস্থ হাসপাতালে যাবার কথা বলা হয়েছে। সবাইকে ফুটিয়ে পানি পান ও বাইরের অস্বাস্থ্যকর খাবার পরিহার করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন ডাক্তাররা।  

জানা যায়, রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, শনির আখড়া ও মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে রোগী আসছেন বেশি।  ভর্তি রোগীর ৩০ শতাংশই কলেরায় আক্রান্ত। রয়েছে গুরুতর রোগীও। আবহাওয়ার পরিবর্তন, অত্যাধিক গরম, খোলা খাবার এবং দূষিত পানি পান করায় হঠাৎ ডায়রিয়া বাড়ার অন্যতম কারণ বলে জানান চিকিৎসকরা।
 
সতর্কতা

১.  বাইরের খোলা পানি পান করা যাবে না। সম্পূর্ণ নিরাপদ ও ফুটানো পানি পান করতে হবে।
২. বাইরের খাবারের ব্যাপারেও সতর্ক হতে হবে। বিশেষ করে হোটেল বা অস্বাস্থকর পরিবেশে পরিবেশন করা হয় এমন খাবার এড়িয়ে যেতে পারলে ভাল।  
৩. রাস্তার পাশে এই সময় অনেক খোলা পরিবেশে লেবুর শরবত, ‌আখের রস, জুস বা ফল কেটে বিক্রি করা হয়। এগুলো এড়িয়ে চলতে হবে।  
৪। অত্যধিক গরমে অধিক পানি পিপাসা লাগাই স্বাভাবিক। চেষ্টা করতে হবে নিরাপদ পানি সাথে বহন করা।

আক্রান্ত হলে করণীয়

১. প্রতিবার পাতলা পায়খানার পর খাবার স্যালাইন খেতে হবে।
২. প্রচুর তরল জাতীয় খাবার, ডাবের পানি খেতে হবে।
৩. পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিতে হবে।
৪. চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া এন্টিবায়োটিক প্রয়োগ নয়।

news24bd.tv/ কামরুল