উৎসবের আগে ত্বকের যত্নে করণীয়
উৎসবের আগে ত্বকের যত্নে করণীয়

সংগৃহীত ছবি

উৎসবের আগে ত্বকের যত্নে করণীয়

ঈদ প্রায় চলে এসেছে। ঈদের আগে বাড়তি কাজের চাপ থাকবেই। না চাইলেও চেহারায় চলে আসবে ক্লান্তির ছাপ। ঈদের আগে এক সপ্তাহ যতটা সম্ভব ত্বকের যত্ন নেওয়ার চেষ্টা করুন।

চোখের নিচে কালো দাগ, ত্বকে কালো ছোপ, মালিন্য কিছুটা হলেও কমে আসবে।

ত্বকের যত্ন নিলে তার সুফল সঙ্গে সঙ্গেই পাওয়া যায় না। তাই ঈদের কয়েক দিন আগে থেকেই নিয়মিত নিতে হবে ত্বকের যত্ন। যেন উৎসবের সাজে আপনাকে লাগে সবচেয়ে প্রাণবন্ত। এদিকে তীব্র গরমে ঈদ। এ সময় সাজ-পোশাক থেকে ত্বকের যত্নের ধরন, সবকিছুতে আসে পরিবর্তন। আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারে এমন পোশাক যেমন বেছে নেবেন, তেমন ত্বকের যত্নের ক্ষেত্রেও কিছু বিষয়ের প্রতি নজর রাখতে হবে।

রোদে পোড়াভাব দূর করতে

ঈদের আগে যেহেতু বাইরে ঘুরে ঘুরে কেনাকাটা করতে হচ্ছে অনেকটা সময়, তাই ত্বকে রোদে পোড়াভাব সৃষ্টি হতে পারে। এই দাগ দূর করার জন্য নিতে হবে বাড়তি যত্ন। তরমুজ কিংবা লাউয়ের রস করে নিয়ে বরফ জমতে দিন। বরফ হয়ে গেলে সেটি সুতির কাপড়ে মুড়িয়ে মুখে আলতো করে ঘষুন। এতে ত্বকের পোড়াভাব দূর হবে, সেইসঙ্গে ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল।

তৈলাক্ত ত্বক

এসময় সবচেয়ে বেশি ভোগেন তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারীরা। কারণ, এ ধরনের ত্বক খুব দ্রুত ঘেমে যায় ও ময়লা শুঁষে নেয়। তৈলাক্ত ত্বক ভালো রাখতে পরিমাণমতো শসার রস, আধা চা চামচ লেবুর রস ও আধা চামচ গোলাপ জল ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর মুখে লাগিয়ে রাখুন আধাঘণ্টার মতো। শুকিয়ে এলে পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে নিন। এভাবে সপ্তাহে চার-পাঁচ দিন ব্যবহার করলে সুফল পাবেন।

শসার প্যাক

গরমে ত্বক সুস্থ ও সতেজ রাখতে অন্যতম কার্যকরী উপাদান হলো শসার প্যাক। এসময় ত্বক অনেকটা শুষ্ক হয়ে পড়ে। তৈলাক্ত ত্বকও বার বার পরিষ্কার করার প্রয়োজন হয়। এসব ক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করবে শসার প্যাক। এই প্যাক তৈরির জন্য আপনাকে শসার পেস্ট ও মসুরের ডাল বাটা মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর পরিষ্কার মুখে লাগিয়ে অপেক্ষা করতে হবে মিনিট পনেরো। শুকিয়ে টান ধরলে পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে নিতে হবে। এতে ত্বক তো উজ্জ্বল হবেই, সেইসঙ্গে ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্তভাবও দূর হবে। গরমেও আপনার ত্বক থাকবে সতেজ। সপ্তাহে তিনদিন এটি ব্যবহার করতে পারেন।

ব্রণ দূর করতে

গরমের সময়ে ব্রণের সমস্যা অনেকটা বেড়ে যায়। ঈদের সাজে মুখে ব্রণ থাকলে দেখতে নিশ্চয়ই ভালোলাগবে না। তাই ব্রণ দূর করার প্রচেষ্টা শুরু করতে হবে এখনই। পরিমাণমতো চিরতার পানি, দুই-তিনটি কাঁচা হলুদ ও আখের গুঁড় খেতে পারেন। এতে মুখ থেকে ব্রণ দূর হবে সহজে। সেইসঙ্গে মুখ সব সময় পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন। নিমপাতা, হলুদ, চিরতা ও মুলতানি মাটি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে মুখে ব্যবহার করবেন। এতেও ব্রণের সমস্যা দূর হয়।

ময়েশ্চারাইজিং ফেসপ্যাক

গরম হোক কিংবা শীত, ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখা জরুরি। কারণ, ত্বক আর্দ্রতা হারিয়ে ফেললে তা জন্ম দিতে পারে বলিরেখার। ফলে আপনাকে অল্প বয়সেই দেখতে বয়স্ক লাগে। এ ছাড়া আরও সমস্যার কারণ হয়েও দাঁড়াতে পারে। গোলাপের পাপড়ি ও খেঁজুর দুধে ভিজিয়ে রাখুন ২-৩ ঘণ্টার মতো। এরপর পেস্ট করে চন্দনের গুঁড়া মিশিয়ে নিন। ত্বকে ব্যবহার করুন এই মিশ্রণ। শুকিয়ে এলে পরিষ্কার ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। এতে ত্বক মসৃণ হবে। বজায় থাকবে ত্বকের আর্দ্রতা।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত