প্রশংসায় ভাসছেন বিশ্বজয়ী হাফেজ তাকরিম
প্রশংসায় ভাসছেন বিশ্বজয়ী হাফেজ তাকরিম

সংগৃহীত ছবি

প্রশংসায় ভাসছেন বিশ্বজয়ী হাফেজ তাকরিম

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের খুদে হাফেজ সালেহ আহমদ তাকরিম মাত্র ১৩ বছর বয়সে বিশ্ব দরবার থেকে দেশের জন্য তিনটি বড় অর্জন নিয়ে এসেছে। এরমধ্যে পবিত্র মক্কায় ৪২তম বাদশাহ আব্দুল আজিজ আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয়, লিবিয়ায় অনুষ্ঠিত ১০ম আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় সপ্তম এবং তেহরানে অনুষ্ঠিত ৩৮তম আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করে।

চলতি বছরে বিশ্ব থেকে কুড়িয়ে আনা বড় এই তিনটি সাফল্যে দেশব্যাপী নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের প্রশংসায় ভাসছেন তাকরিম।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিজ ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে তাকরিমকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিশিষ্ট ইসলামী আলোচক ও প্রখ্যাত দাঈ মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারি।

 

তিনি লেখেন, সাবাস তাকরিম! দু’আ ও অভিনন্দন তোমায়। ওর তেলাওয়াতে একটা বিশেষ আবেদন আছে। রীতিমত মন ছুঁয়ে যায়। আমার ভালো লাগে খুব।

সাফল্যের এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকুক। তাকরিমরা বেশি বেশি জন্ম নিক এ ভূখণ্ডে। ছড়িয়ে দিক কুরআনের সুধা বিশ্বময়।

এ ছাড়াও ইসলামিক স্কলার শায়খ আহমাদুল্লাহও শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পোস্টে হাফেজ তাকরিমকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।  

তিনি লিখেন, তাকে ও তার শিক্ষক-অভিভাবকদের অভিনন্দন। মহান আল্লাহ তার জীবনে সর্বাঙ্গীন কল্যান দান করুন। তার সম্মানিত শিক্ষক ও অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ, তাকে খুব বেশি পাবলিক প্রোগ্রামে উপস্থাপন করে তার সামনে অগ্রসর হওয়ার সম্ভাবনাকে হুমকির মুখে ফেলে দিবেন না। এবার তাকে নিবিড়ভাবে ভালো আলেম ও উচ্চ শিক্ষা অর্জনের সুযোগ দিন। আমাদের নিজেদের সামান্য স্বার্থে ব্যবহার কিংবা অতি মাতামাতির কারণে এ ধরনের সম্ভাবনাময় ছেলেরা হারিয়ে যায়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক এবং লন্ডন প্রবাসী বিশিষ্ট স্কলার ড. মাহমুদুল হাসান লিখেছেন, কিশোর সালেহ তাকরিমের লাজুক বিজয়ী ও বিনয়ী হাসি অন্তরে যেমন ভালোলাগা-বোধ সৃষ্টি করে, তেমনি তার সুমিষ্ট তেলাওয়াত মন স্পর্শ করে; পবিত্রতা-বোধ তৈরি করে। শুধু দোয়া করি, তাকরিমদের চতুর্দিকে যেন তৈরি হয় প্রজ্ঞাপূর্ণ অভিভাবকত্বের দুর্ভেদ্য দুর্গ— যাতে খ্যাতি ও সম্পদের আগ্রাসী হাতছানিতে হারিয়ে না যায় তাদের বিজয় ও অর্জন। হুজুগের দমকা হাওয়ায় চারাগুলো যেন অঙ্কুরে বিনষ্ট হয়ে না যায়। তাদের বিনয় যেন দম্ভে রূপ না নেয় । আল্লাহর কাছে তাদের সুরক্ষা কামনা করছি।

তাকরিমের এই অর্জনে অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় লেখক আনিসুল হক। শুক্রবার সকালে পাঠকপ্রিয় উপন্যাস ‘মা’-এর রচয়িতা নিজের ফেসবুক পেজে তাকরিমকে নিয়ে প্রকাশিত প্রথম আলোর একটি নিউজের ছবি পোস্ট করেন। ক্যাপশনে লেখেন, অভিনন্দন, সালেহ আহমাদ তাকরিম।

ক্ষুদে এ হাফেজকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিমও। তিনি পুরস্কার হাতে তাকরিমের একটি ছবি পোস্ট করে ইংরেজিতে ক্যাপশন লিখেছেন। যার অর্থ : ‘মাশাআল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ। তোমাকে নিয়ে গর্বিত ছোট ভাই। দয়া করে আমাদের জন্য দোয়া করো। ’

সাবেক ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক রাজ লিখেছেন, আলহামদুলিল্লাহ। মহান অর্জন। আল্লাহ তোমাকে একজন সঠিক মুসলমান হিসেবে কবুল করুক।

‘খেলবেই বাংলাদেশ’-এর ফাউন্ডার কাজী সাবির বিরাট ব্যানারের সামনে ক্ষুদে হাফেজ তাকরিমের দাঁড়ানো অবস্থার একটি ছবি শেয়ার করেছেন। ক্যাপশনে লিখেছেন,‘দারুণ! ওর অর্জনটা যে কত বড় এটা ব্যানারের সাইজ আর ব্যানারের সামনে ছেলেটার ক্ষুদ্রতা দেখলে বুঝা যায়, নিজের বয়সের তুলনায় কত বড় অর্জন! নিজের ভাষা না তারপরেও সেই অঞ্চলের ভাষাভাষীদের হারিয়ে জয়ী হওয়া অসাধারণ অর্জন! ওকে নিশ্চয়ই অসংখ্যবার শুনতে হয়েছে, ‘আরে মাদ্রাসায় পড়ে কি করবা?’ নিজের নামের বদলে হয়তো ‘হুজুর’ ডাকটাই বেশী শুনতে হবে জীবনে! কিন্তু সেই ‘হুজুর’ই আজকে সে দেশের জন্য সম্মান বয়ে নিয়ে এসেছে!’

এ ছাড়াও অভিবাদন জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। এভাবে আরো অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ নানাভাবে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন তাকরিমকে।

উল্লেখ্য, হাফেজ সালেহ আহমদ তাকরিম ঢাকার মারকাযু ফয়জিল কুরআন আল ইসলামি মাদরাসার শিক্ষার্থী। তার বাড়ি টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার ভাদ্রা গ্রামে। তার বাবা হাফেজ আব্দুর রহমান মাদরাসার শিক্ষক এবং মা গৃহিণী।

news24bd.tv/আলী