ওয়াদা ভঙ্গকারীর শাস্তি
ওয়াদা ভঙ্গকারীর শাস্তি

ওয়াদা ভঙ্গকারীর শাস্তি

অনলাইন ডেস্ক

প্রতিজ্ঞা, প্রতিশ্রুতি বা ওয়াদা পালন করা মানব জীবনের একটি বিশেষ গুণ। জীবনের কঠিনতম কাজগুলোর মধ্যে ওয়াদা রক্ষা, ওয়াদা পালন করা কঠিনতম সর্বোত্কৃষ্ট কাজ।

একজন ঈমানদার ব্যক্তির মৌলিক বৈশিষ্ট্যের অন্যতম হলো ওয়াদা বা ওয়াদা রক্ষা করা। এ বিষয়ে পবিত্র কোরআন ও হাদিসের বর্ণনাগুলো অধ্যয়ন করলে বোঝা যায়, অঙ্গীকার রক্ষা করা ঈমানের দাবি।

মুমিন ওয়াদা ভঙ্গ করতে পারে না। ‘মুমিন ব্যক্তি ওয়াদা করলে তা পূরণ করে। ’ আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনের বেশ কয়েকটি আয়াতে ওয়াদা পূরণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন। যেমন ইরশাদ হয়েছে, ‘তোমরা ওয়াদা বা ওয়াদা পূর্ণ করো। নিশ্চয়ই ওয়াদা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হবে। ’ (সুরা বনি ইসরাইল, আয়াত ৩৪)।  

তোমরা যখন পরস্পর আল্লাহর নামে কোনো ওয়াদা করো তা পূর্ণ করো। (সুরা নাহ্ল, আয়াত ৯১)। ‘হে ঈমানদাররা! তোমরা ওয়াদাগুলো পূরণ করো। ’ (সুরা মাইদা, আয়াত ১)।

মহান আল্লাহ তাআলা দুনিয়ার স্বার্থে ওয়াদা ভঙ্গকারীদের নিন্দা ও ধিক্কার জানিয়েছেন। দুনিয়ার সামান্য স্বার্থের কাছে পরাজয় বরণ করে ওয়াদা ভঙ্গ করলে এর ক্ষতিও মারাত্মক।  

- ওয়াদা ভঙ্গকারীর জান্নাতের নেয়ামতে কোনো অংশ নেই। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি মিথ্যা শপথ দ্বারা কোনো মুসলমানের অধিকার নষ্ট করে, সে নিজের জন্য জাহান্নামের শাস্তিকে অপরিহার্য করে নেয়। বর্ণনাকারী বলেন, যদি বিষয়টি সামান্য হয় তবুও কি জাহান্নামের শাস্তি অপরিহার্য? তিনি বললেন, ‘তা গাছের একটা তাজা ডালই হোক না কেন। ’ (মুসলিম)

- ওয়াদা ভঙ্গকারীর সঙ্গে আল্লাহ অনুকম্পাসূচক কথা বলবেন না।

- কেয়ামতের দিন আল্লাহ তাআলা ওয়াদা ভঙ্গকারীর দিকে রহমতের দৃষ্টিতে তাকাবেন না।


টিকা নিয়ে কোনো সমস্যা হচ্ছে না: প্রধান বিচারপতি

আবারো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফিরলেন ট্রাম্প


- আল্লাহ তাআলা ওয়াদা ভঙ্গকারীর গোনাহ ক্ষমা করবেন না। কেননা অঙ্গীকার ভঙ্গের কারণে বান্দার হক নষ্ট হয়। আর বান্দার হক আল্লাহ ক্ষমা করবেন না।

- ওয়াদা ভঙ্গকারীর জন্য রয়েছে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি। (তাফসিরে জালালাইন ও মারেফুল কুরআন)

news24bd.tv নাজিম