যুগপৎ আন্দোলনে একমত বিএনপি ও গণসংহতি
যুগপৎ আন্দোলনে একমত বিএনপি ও গণসংহতি

সংগৃহীত ছবি

যুগপৎ আন্দোলনে একমত বিএনপি ও গণসংহতি

অনলাইন ডেস্ক

ক্ষমতাসীন সরকারের পতন, নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির সঙ্গে গণসংহতি আন্দোলনের ঐকমত্য হয়েছে। এসব দাবি আদায়ে জোটগতভাবে কর্মসূচি দেবে দল দুটি। সমমনা সব গণতান্ত্রিক দলের সঙ্গে দ্রুত এমন ঐক্যের মাধ্যমে আন্দোলনের চূড়ান্ত রূপরেখা ঘোষণা করতে চায় বিএনপি। সরকার বিরোধী আন্দোলন ও নির্বাচন সামনে রেখে বিএনপি নেতৃত্বাধীন নতুন জোট এবার যোগ দিয়েছে জোনায়েদ সাকির নেতৃত্বাধীন গণসংহতি আন্দোলন।

মঙ্গলবার (৩১ মে) সকালে দলটির হাতিরপুল কার্যালয়ে বৈঠকে বসেন বিএনপি মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির সিনিয়র নেতারা।

বেলা বারোটা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত দীর্ঘ দেড় ঘণ্টা ধরে চলে বৈঠক। আলোচনার মূল ইস্যু আওয়ামী লীগ সরকারের পতন এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন। এর সঙ্গে যুক্ত হয় খালেদা জিয়াসহ বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের নামে মামলা প্রত্যাহার ও সংবিধানের গণবিরোধী সংশোধনগুলো বাতিল।

এসব দাবি আদায়ে বিএনপির নেতৃত্বে জোটগতভাবে আন্দোলনে নামার ঘোষণা দিয়েছে বাম ধারার দল গণসংহতি আন্দোলন।

দলটির সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, বিরোধী পক্ষ থেকে যদি জাতীয় রূপরেখা হাজির হয় তাহলে আমরা বৃহত্তর ঐক্যে গড়ে তুলে বর্তমান সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে পারবো। সেজন্য আমরা প্রাথমিকভাবে ঐক্যমত হয়েছি যে, যুগপৎ আন্দোলন আমাদের যার যার অবস্থা থেকে পরিচালনা করতে হবে। আর ভবিষ্যতেও এ বিষয়ে আরো আলোচনা হবে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে ১৮ কোটি মানুষকে এক কাতারে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে এবং সবাই ভোটাধিকারের দাবিতে আজকে নিজেরা আন্দোলন করবেন।

একটা জাতীয় ঐক্যের জায়গায় সরকার যেহেতু দাঁড় করিয়ে দিয়েছে, এই জাতীয় আন্দোলন আগামী দিনে সকলে নিজের অবস্থান থেকে সাধ্যমত করবেন বলে যোগ করেন সাকি।

এ সময় মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকারের গেলো এক যুগের শাসনে দেশ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে। এখন রাষ্ট্র মেরামতের জন্য গণতান্ত্রিক শক্তিকে এক করার কাজ করেছে বিএনপি। আর এতেই সরকারের পতন নিশ্চিত হবে বলে মনে করেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, যুগপৎ আন্দোলনের ব্যাপারে বিএনপি-গণসংহতি আন্দোলন একমত হয়েছে। যুগপৎ অর্থ তারা জোটবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করবে না। তবে একই লক্ষ্য অর্জনে দুই দলই নিজ নিজ জায়গা থেকে কর্মসূচি আলাদাভাবে পালন করলেও তাতে সমন্বয় থাকবে। আন্দোলনের রূপরেখা নিয়েও আলোচনা হবে।

যুগপৎ আন্দোলনের প্রেক্ষাপট ব্যাখ্যা করে মির্জা ফখরুল বলেন, ভয়াবহ যে ফ্যাসিবাদী সরকার, যারা আমাদের সমস্ত অর্জনগুলোকে ধ্বংস করে দিচ্ছে, তাদেরকে সরিয়ে সত্যিকার অর্থেই একটা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা একমত হয়েছি। যে বিষয়গুলোতে আমরা একমত হয়েছি, তা হচ্ছে, এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে, সংসদ বাতিল করতে হবে।

news24bd.tv/আলী