শিক্ষার্থী-রোহিঙ্গাদের জন্য অনুদানের টাকা আত্মসাৎ করেছেন মামুনুল-কাসেমি: ডিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

শিক্ষার্থী-রোহিঙ্গাদের জন্য অনুদানের টাকা আত্মসাৎ করেছেন মামুনুল-কাসেমি: ডিবি

(ছবি বাঁ-দিক থেকে) মাওলানা মামুনুল হক, মনির হোসেন কাসেমী

হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক ও অর্থ সম্পাদক মনির হোসেন কাসেমী মাদরাসার শিক্ষার্থী ও রোহিঙ্গাদের অনুদানের টাকা আত্মসাৎ করেছেন। সংগঠনটির শীর্ষস্থানীয় এই দুই নেতার ব্যাংক লেনদেনের তথ্য যাচাই করে এসব কথা জানিয়েছে পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। 

গতকাল ডিবি কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের যুগ্ম কমিশনার মো. মাহবুব আলম তদন্তের অগ্রগতি জানাতে গিয়ে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, মানবিক সহায়তার কথা বলে প্রবাসীদের কাছ থেকে এই টাকা সংগ্রহ করেন হেফাজত নেতারা। তবে শিক্ষার্থী বা রোহিঙ্গাদের না দিয়ে ওই অনুদান নিজেরাই তছরুপ করেছেন।

তিনি জানান, মাওলানা মামুনুলের ব্যাংক হিসাবে ছয় কোটি টাকার লেনদেনসহ আর্থিক জালিয়াতির তথ্য পেয়েছে ডিবি। এ ছাড়া সাম্প্রতিক নাশকতায় হেফাজতের বেশ কয়েকজন নেতার সম্পৃক্ততা পেয়েছেন তদন্তকারীরা।  কয়েকটি মামলার তদন্তও এখন শেষ পর্যায়ে।

ডিবির এই কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, ‘সমপ্রতি হেফাজতের বেশ কয়েকজন নেতাকে আমরা গ্রেপ্তার করেছি। গ্রেপ্তারের মধ্য দিয়ে অনেক মামলার তদন্তে অগ্রগতি হয়েছে। এর মধ্যে হেফাজতের আর্থিক বিষয়টি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ ও নথিপত্র যাচাই-বাছাই করছি।’ তিনি জানান, মামুনুল হকের ব্যাংক হিসাবে লেনদেন ছাড়াও সমপ্রতি গ্রেপ্তার করা হেফাজতের বিলুপ্ত কমিটির অর্থ সম্পাদক মনির হোসেন কাসেমীর বেশ কিছু হিসাবের খোঁজ পাওয়া গেছে। সেগুলোরও তদন্ত চলছে।

ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম আরো বলেন, প্রবাসীরা মাদরাসা বা মাদরাসা-শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন কাজে হেফাজতের কাছে দান করে থাকেন। রোহিঙ্গাদের জন্যও তাঁরা দান করেন। এ ছাড়া হেফাজতের জন্যও কিছু কিছু টাকা বিদেশ থেকে আসে। এই টাকাগুলো বিদেশ থেকে আসার পর সেগুলো নেতারা সঠিকভাবে ব্যবহার করতেন না। তাঁদের নিজের ইচ্ছামতো টাকাগুলো নেওয়ার পর খরচ করতেন। তাঁরা এই টাকাগুলো রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে ব্যবহার করেছেন। রোহিঙ্গাদের টাকাও হেফাজত নিজেদের কাজে ব্যবহার করত। বিপুল পরিমাণ টাকা তাঁরা তছরুপ করেছেন। টাকাগুলো দিয়ে হেফাজত নেতারা নিজেদের বাড়ি-গাড়ি করেছেন।

তদন্তের বরাত দিয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, মাদরাসার সংগঠন বেফাক বা হায়াতুল উলয়া অনেক গুরুত্বপূর্ণ সংগঠন; কিন্তু এসব সংগঠনও হেফাজতের কাছে জিম্মি হয়ে যাচ্ছে। ফলে এসব সংগঠন তাদের সঠিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারছে না। এ ধরনের অর্থ যাদের হাতে চলে যাচ্ছে বা অর্থের নিয়ন্ত্রক যারা তারাই রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করছে। আবার ক্ষেত্রবিশেষে তারাই এই টাকাগুলোর মালিক হচ্ছে। এসব বিষয়ে আলাদা মামলা হতে পারে বলেও জানান তিনি।

মাহবুব আলম বলেন, ‘২০১৩ সালের ১৪টি মামলা আমরা তদন্ত করছি। এ ছাড়া নতুন বেশ কয়েকটি মামলা আমরা পেয়েছি।’ খুব দ্রুতই মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করা হবে বলে জানান তিনি।

নরেন্দ্র মোদির সফর ঘিরে বিক্ষোভ ও হরতাল কর্মসূচি থেকে নাশকতার পর সোনারগাঁয় নারীসহ আটক হয়ে ব্যাপক সমালোচিত হন হেফাজত নেতা মামুনুল হক। পরে পুলিশ পুরনো একটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সংবাদপত্রে দেখলাম আমার এবং মান্নানের নাকি দ্বন্দ্ব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

সংবাদপত্রে দেখলাম আমার এবং মান্নানের নাকি দ্বন্দ্ব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পরিকল্পনা মন্ত্রী আব্দুল মান্নানের সঙ্গে তার কোনো দ্বন্দ্ব নেই বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

সোমবার ( ১৪ জুন) ড. মোমেন ফেসবুক স্ট্যাটাসে পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, মান্নান আমার বন্ধু, মান্নানের সঙ্গে আমার সম্পর্ক ৫০ বছরের বেশি। আমি এবং মান্নান সুখে দুঃখে সবসময়ই ছিলাম এবং আছি, ভবিষ্যতেও আমৃত্যু থাকব বলেই আশা করি।

আরও পড়ুন:


ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য হতে লাগে ১৮ লাখ টাকা

নাসিরের বাসায় উঠতি বয়সী তরুণীদের দিয়ে চলত অনৈতিক কার্যকলাপ

মাত্র ৫ হাজার টাকা পেয়েই হত্যার মিশনে নামে খুনিরা

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২


 

‘দুঃখজনক যে সিলেটের একটি স্থানীয় সংবাদপত্রে দেখলাম আমার এবং মান্নানের মধ্যে নাকি দ্বন্দ্ব রয়েছে, এবং এই দ্বন্দ্বের কারণে নাকি সিলেটের অনেক উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে! কে বা কারা এই সংবাদটি প্রচার করছেন জানি না তবে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং বানোয়াট। যে বা যারা এটি প্রচার করছেন তারা হয়তোবা কোনো বিশেষ বা অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য করছেন। ফেসবুকে এই স্ট্যাটাসটির প্রয়োজন আছে বলে মনে করছি না তবে একটি বিশেষ কারণে দিচ্ছি আর তা হলো আমার এবং মান্নানের স্থানীয় অনেক শুভাকাঙ্ক্ষী রয়েছেন আর তাদের মধ্যে যাতে কোনো বিভ্রান্তির সৃষ্টি না হয়।’

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পরিস্থিতি সামাল দেওয়া কঠিন হয়ে পড়বে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

পরিস্থিতি সামাল দেওয়া কঠিন হয়ে পড়বে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আবারও দ্বিতীয় দফায় শুরু হতে যাচ্ছে করোনার টিকা প্রয়োগ। আগামী ১৯ জুন থেকে এ টিকার প্রয়োগ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এক্ষেত্রে  নিবন্ধিতরা অগ্রাধিকার পাবে বলেও জানান তিনি।

আজ সোমবার বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনসের অডিটিরিয়ামে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মা ফৌজিয়া মালেকের মৃত্যুতে বিশেষ দোয়া মাহফিলে তিনি এ কথা জানান।


আরও পড়ুন

নাসিরের বাসায় উঠতি বয়সী তরুণীদের দিয়ে চলত অনৈতিক কার্যকলাপ

মাত্র ৫ হাজার টাকা পেয়েই হত্যার মিশনে নামে খুনিরা

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২

চতুর্থ বিয়ের মধুচন্দ্রিমায় পাহাড়ে যেতে চান শ্রাবন্তী?


স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, করোনার সংক্রমণ যদি রোধ করা না যায় পরিস্থিতি সামাল দেওয়া কঠিন হবে। এজন্য সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানার আহ্বান জানান তিনি।

 news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

৩ দিন গ্যাস সংকটে থাকবে পুরো দেশ

অনলাইন ডেস্ক

৩ দিন গ্যাস সংকটে থাকবে পুরো দেশ

সাগরে বৈরী আবহাওয়ার কারণে এলএনজি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় ১৪ থেকে ১৬ জুন তিনদিন সারাদেশে গ্যাসের সংকট থাকবে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈরী আবহাওয়ার কারণে সাগর উত্তাল থাকায় বিঘ্ন ঘটছে এলএনজি খালাসে। এর ফলে প্রতিদিন অন্তত ৪০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পাইপলাইনে সরবরাহ করা সম্ভব হবে না। এজন্য ১৪-১৬ জুন পর্যন্ত তিন দিন আবাসিক, শিল্প, বিদ্যুৎ ও বাণিজ্যিক কাজে গ্যাস সরবরাহ ব্যাহত হবে।

তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী ইকবাল মো. নুরুল্লাহ বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে এলএনজি ঢুকতে পারছে না। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী তিন দিন আবহাওয়া খারাপ থাকবে। ফলে এলএনজি নামাতে পারবে না। এ কারণেই আগামী তিনদিন সারা দেশে গ্যাসের স্বল্প চাপ বিরাজ করবে।

আরও পড়ুন:


করোনা: দেশে একদিনে মৃত্যু ছাড়াল অর্ধশতক, বেড়েছে শনাক্তও

পুলিশ বাহিনী আজ জনগণের ভালোবাসায় পরিণত হয়েছে: আইজিপি

পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা: প্রধান আসামি নাসিরসহ পাঁচজন গ্রেপ্তার


 

দুঃখ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, মানুষের জন্য এটা খুবই কষ্টদায়ক হবে। তারপরও আমাদের কিছু করার নেই।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

মায়ের নির্দেশ হল তার কাদের মির্জার চোখগুলো তুলে নিয়ে আসা

অনলাইন ডেস্ক

মায়ের নির্দেশ হল তার কাদের মির্জার চোখগুলো তুলে নিয়ে আসা

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশীদ মঞ্জু বলেছেন, আমার মায়ের নির্দেশ হল তার (কাদের মির্জা) চোখগুলো তুলে নিয়ে আসা। আজকে রাতের মধ্যে প্রশাসন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে বুঝবেন আন্দোলন কত প্রকার ও কী কী!


আরও পড়ুন

সে রাতে উত্তরা বোট ক্লাবে পরীমনির সঙ্গে কী ঘটেছিল!

ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা সম্পর্কে যা জানালেন পরীমণি

নেইমার জাদুতে কোপায় উদ্বোধনী ম্যাচে ব্রাজিলের জয়

চতুর্থ বিয়ের মধুচন্দ্রিমায় পাহাড়ে যেতে চান শ্রাবন্তী?


আজ সোমবার নিজের ফেসবুক থেকে লাইভে এসে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি বলেন, ৪৮ ঘণ্টার অবরোধের সময় শেষ হয়েছে। কাদের মির্জা ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবিতে আমরা অবরোধ ডেকেছিলাম। কিন্তু প্রশাসন কাদের মির্জাসহ তার কোন সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেনি। তাই এই অবরোধ সর্বাত্মকভাবে আজ রাত ১২টা পর্যন্ত চালিয়ে যাবেন। যদি আজ রাত ১২টার মধ্যে এটার সুরাহা না হয়, তাহলে এখানে আরো কঠিন থেকে কঠিন কর্মসূচি দেওয়া হবে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

সংক্রমণ রোধে বিধিনিষেধ কার্যকর করতে ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

সংক্রমণ রোধে বিধিনিষেধ কার্যকর করতে ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে স্থানীয় প্রশাসনকে প্রয়োজন অনুযায়ী বিধিনিষেধ কার্যকরে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন ।

আজ সোমবার বিকেলে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।


আরও পড়ুন

নাসিরের বাসায় উঠতি বয়সী তরুণীদের দিয়ে চলত অনৈতিক কার্যকলাপ

মাত্র ৫ হাজার টাকা পেয়েই হত্যার মিশনে নামে খুনিরা

ময়মনসিংহে বাসচাপায় নিহত ২


তিনি জানান, স্থানীয় প্রশাসনকে বলা হয়েছে যদি কোনো এলাকা  ব্লক করে দেওয়ার প্রয়োজন হয় তাহলে স্থানীয়ভাবে সবাই আলোচনা করে সেটা করতে পারবে।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে কোনোরকম ঝুঁকি না নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

 

পরবর্তী খবর