প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে, অবশেষে বুড়িগঙ্গায় মিলল গৃহবধূর লাশ

অনলাইন ডেস্ক

প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে, অবশেষে বুড়িগঙ্গায় মিলল গৃহবধূর লাশ

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী মিরহাজীরবাগ এলাকা থেকে নিখোঁজ হয় মালা। পরে বুড়িগঙ্গা থেকে গৃহবধূ মালা আক্তারের ভাসমান লাশ উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড। নিহত মালা আক্তার যাত্রাবাড়ী মিরহাজীরবাগ এলাকার নূর নবীর একমাত্র মেয়ে।

জানা যায়, এক বছর আগে প্রেম করে পালিয়ে মজিবুর রহমানকে বিয়ে করে মালা আক্তার। এর পরই অশান্তি শুরু হয় সংসারে।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ফতুল্লার তালতলা এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পাগলা কোস্টগার্ড সদস্যরা জানান, নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের পরিবারের অনুরোধে লাশ উদ্ধার করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নিহতের চাচা নুরুজ্জামান জানান, এক বছর আগে মিরাজীবাগ এলাকার ইঞ্জিনিয়ার গলির মতিউর রহমান মোল্লার ছেলে মজিবুর রহমানের (২০) সঙ্গে প্রেমে জড়িয়ে পড়ে মালা ঘর ছেড়ে পালিয়ে বিয়ে করে।

তিনি বলেন, বিয়ের পর থেকে তাদের সংসারে অশান্তি চলছে। কারণে অকারণে প্রায় সময় মালার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালাতো মজিবুর। এতে সহ্য করতে না পেরে মালা বাবার বাড়ি চলে আসত। পরে মজিবুর এসে জোর করে তার বাড়িতে মালাকে নিয়ে গেছে। গত ১১ আগস্টও মালাকে মারধর করলে সে বাবার বাড়ি চলে আসে।

তিনি আরও জানান, ১১ আগস্ট সন্ধ্যার পর মজিবুর এসে মালাকে তার বাবার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে মালা নিখোঁজ। পরে সন্দেহ হলে মজিবুরকে আটক করে স্থানীয় থানা পুলিশে হস্তান্তর করেছি।

আটকের পর মজিবুর জানিয়েছে, তার সামনে থেকে মালা পোস্তগোলা ব্রিজ থেকে নদীতে লাফিয়ে পড়েছে। কিন্তু মালার লাশে আঘাতের চিহ্ন বলছে তাকে নির্যাতন করে হত্যার পর লাশ নদীতে ফেলে দেয়া হয়েছে। 

এ বিষয়ে আটক মজিবুরের বিরুদ্ধে মামলা করব বলে জানান নিহতের চাচা নুরুজ্জামান।

আরও পড়ুন:


কাবুলের খুব কাছের শহর পুল-ই-আলম দখলে নিল তালেবানরা

চীন থেকে কেনা সিনোফার্মের আরও ১০ লাখ টিকা আসছে আজ

‘আফগান সরকারের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানের মার্কিন পরিকল্পনা ফাঁস’

মার্কিন দূতাবাসে হামলা না চালাতে তালেবানের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আহ্বান


NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে ৫৫ জন আটক

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে ৫৫ জন আটক

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৫৫ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর বিভিন্ন অপরাধ ও গোয়েন্দা বিভাগ।

বিস্তারিত আসছে...

রও পড়ুন:

একাধিক পদে নিয়োগ দেবে বেক্সিমকো

ব্রাজিলিয়ান মডেলকে বিয়ে করতে ৪ কোটি টাকা সাধলেন আরব শেখ!

জার্মানীতে এ্যাঙ্গেলা মার্কেল যুগের অবসান ও কিছু কথা

ইংরেজি শেখার জন্য বিয়ে করেছিলেন শেবাগ-যুবরাজ-হরভজন!!


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

১২ নারীকে ধর্ষণের পর ধরা ঝালাইমিস্ত্রি!

অনলাইন ডেস্ক

১২ নারীকে ধর্ষণের পর ধরা ঝালাইমিস্ত্রি!

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার যুবক সাগর মিজির পেশা ঝালাইমিস্ত্রি। চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করলেও ভার্চুয়াল জগতে নিজেকে তিনি স্নাতকোত্তর পাস পরিচয় দিতেন। একাধিক ভুয়া ফেসবুক আইডিও রয়েছে তাঁর। আর এসব আইডি ব্যবহার করে নারীদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলতেন তিনি।

সর্বশেষ চট্টগ্রামের এক তরুণীর সঙ্গে একই কৌশলে সম্পর্ক গড়ে তোলেন সাগর। এরপর গত ২০ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের একটি রিসোর্টে ওই তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে পালিয়ে যান তিনি।

গত শনিবার রাতে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড টোল প্লাজা এলাকা থেকে সাগর মিজি নামের ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে এমন তথ্য পাওয়ার দাবি করেছে র‌্যাব। গতকাল রোববার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১০-এর পরিচালক অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক মাহ্ফুজুর রহমান জানান, গত ১৮ সেপ্টেম্বর সকালে কক্সবাজারের কলাতলী এলাকার একটি রিসোর্টে কক্ষ ভাড়া নেন সাগর মিজি। এরপর তিনি হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানান, ২০ সেপ্টেম্বর তাঁর স্ত্রী ঢাকা থেকে আসবেন।

তখন দুজন থাকতে পারবেন, এমন একটি কক্ষ ভাড়া নেবেন। এরপর ২০ সেপ্টেম্বর সাগর স্ত্রী পরিচয় দিয়ে এক নারীকে নিয়ে ওই হোটেলে অবস্থান করেন। পরদিন সকালে হোটেল কর্তৃপক্ষ ওই কক্ষে কোনো সাড়া না পেয়ে দরজা ভেঙে তরুণীর লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে ওই তরুণীর লাশ উদ্ধার করে।

আরও পড়ুন:


প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলার মামলার আসামি গ্রেপ্তার

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনো পথ দেখছি না: শাকিল


ঘটনার ছায়া তদন্তে নেমে প্রযুক্তির সাহায্যে সাগর মিজিকে শনাক্ত করে র‌্যাব জানায়, হোটেলে দেওয়া মোবাইল নম্বর ও অন্যান্য সূত্রের মাধ্যমে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সাগর মিজিকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ওই তরুণীকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন। তাঁকে কক্সবাজার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাগর র‌্যাবকে জানিয়েছেন, রিসোর্টের কক্ষে ওই তরুণীকে তিনি ধর্ষণ করেন। এ সময় নারীর সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় তাঁর। একপর্যায়ে ওই তরুণীর গলা চেপে ধরে দেওয়ালের সঙ্গে ধাক্কা দিলে মেঝেতে পড়ে যান। তখন ওই তরুণীর গলা টিপে ধরে পাশে থাকা গ্লাস দিয়ে কয়েকবার মাথায় সজোরে আঘাত করে হত্যা করেন।

র‌্যাব কর্মকর্তা মাহ্ফুজুর রহমান আরও জানান, এরই মধ্যে নিশ্চিত হওয়া গেছে, ধরা পড়ার আগে তিনি অন্তত ১২ নারীকে ধর্ষণ করেছেন। তবে তাঁদের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তাঁর ফাঁদে পা দেওয়া নারীদের মধ্যে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থীও রয়েছেন। এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে দেখা হচ্ছে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

শ্যালিকাকে ধর্ষণে জন্ম নেয়া সন্তানের বয়স চার মাস, অবশেষে দুলাভাই গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

শ্যালিকাকে ধর্ষণে জন্ম নেয়া সন্তানের বয়স চার মাস, অবশেষে দুলাভাই গ্রেপ্তার

নেত্রকোনার মদনে দুলাভাইয়ের ধর্ষণে শ্যালিকার সন্তান জন্ম হওয়ার ঘটনায় মানিক মিয়া (৩০)কে গ্রেপ্তার করেছে মদন থানার পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতকে রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে নেত্রকোনা আদালতে পাঠানো হয়েছে। শনিবার রাতে নোয়াখালী জেলার সোনামুড়ী উপজেলার বগাদিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালী জেলার সোনামুড়ী উপজেলার বগাদিয়া গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে মানিকের সঙ্গে রং নাম্বারে প্রেমের সম্পর্ক হয় নেত্রকোনার মদন উপজেলার ভুক্তভোগী তরুণীর (১৯) বড় বোনের। দীর্ঘদিন আগে প্রেমের টানে মানিক মিয়া মদন উপজেলায় এসে ওই তরুণীর বড় বোনকে বিয়ে করে মদনেই সংসার জীবন শুরু করে। সংসার জীবনে ৭ বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে তাদের।

সম্প্রতি মানিক মিয়া তার শ্যালিকাকে ঘরে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করার এক পর্যায়ে ওই তরুণী (শ্যালিকা) অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনা জানতে পেরে মানিক মিয়া পালিয়ে নোয়াখালীতে চলে যায়। 

আরও পড়ুন:


প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলার মামলার আসামি গ্রেপ্তার

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনো পথ দেখছি না: শাকিল


এদিকে গত জুন মাসে ওই তরুণী (শ্যালিকা) একটি ছেলে সন্তান জন্ম দেয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী তরুণী নেত্রকোনা আদালতে তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। আদালতের নির্দেশে গত ২১ সেপ্টেম্বর মদন থানায় মামলা রজু করা হয়। এরই প্রেক্ষিতে মদন থানার এসআই আব্দুল আজিজ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শনিবার রাতে নোয়াখালীর সোনামুড়ী উপজেলার বগাদিয়া গ্রাম থেকে মানিক মিয়াকে গ্রেপ্তার করে মদন থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস আলম বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে মানিক মিয়াসহ তিনজনকে আসামি করে মামলা করেছে। প্রধান আসামি মানিক মিয়াকে গ্রেপ্তার করে নেত্রকোনা আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

গাজীপুরে ১৮ কেজি গাঁজা সহ দুই মাদক কারবারি গ্রেপ্তার

মোহাম্মদ আল-আমীন, গাজীপুর

গাজীপুরে ১৮ কেজি গাঁজা সহ দুই মাদক কারবারি গ্রেপ্তার

গাজীপুরে দুই মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১ । শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যার দিকে গাজীপুর জিএমপি টঙ্গী পশ্চিম থানাধীন চান্দনা টঙ্গী স্টেশন রােড এলাকা থেকে ১৮ কেজি গাঁজাসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন- কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানার বশির উদ্দিনের ছেলে হারুন অর রশিদ (৫৩) এবং দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর থানার পলাশবাড়ী গ্রামের মৃত আজহার আলীর ছেলে সবুজ (৩১)।

এদিকে সকালে র‌্যাব-১এর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মেজর এএসএম মাঈদুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় গাজীপুর টঙ্গী পশ্চিম থানাধীন স্টেশন রােড এলাকায় মাদকদ্রব্য গাঁজা ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে। পরে ক্যাম্পের আভিযানিক দল কোম্পানী কমান্ডার মেজর এএসএম মাঈদুল ইসলাম  ও সিনিয়র এএসপি জি এম মাজহারুল ইসলাম এর নেতৃত্বে ওই এলাকায় (রেডিয়াম ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিপরীতে) অনন্যা ক্লাসিক কাউন্টারের সামনে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ওপর অভিযান পরিচালনা করা হয়।

আরও পড়ুন:


হংকংয়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মেয়েদের বড় জয়

তালেবান ক্ষমতায় আসায় বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত উৎফুল্ল: কৃষিমন্ত্রী

সৌদি আরবে বাংলাদেশির মৃত্যু

দুই ডোজ টিকা নিয়েও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত


পরে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে ১৮ কেজি গাঁজা, দুটি মােবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। কোম্পানী কমান্ডার আরো জানান, জিজ্ঞাসাবাদে জানায়  তারা দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন স্থান থেকে অবৈধ মাদকদ্রব্য গাঁজা সরবরাহ করে গাজীপুর টঙ্গীসহ গাজীপুরে বিভিন্ন এলাকায় সুকৌশলে ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা, আসামি ভারতে পালানোর সময় গ্রেপ্তার

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা, আসামি ভারতে পালানোর সময় গ্রেপ্তার

সাতক্ষীরায় দশম শ্রেণী ছাত্রী পূর্ণিমা দাসকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ ও শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার একমাত্র আসামি ভিকটিমের প্রেমিক পার্থ মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

শনিবার রাতে অবৈধভাবে ভারতে পালানোর সময় বৈকারী সীমান্ত থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে হত্যায় ব্যবহৃত ইলেকট্রিক ক্যাবল ও একটি বাইসাইকেল জব্দ করা হয়। 

আজ রোববার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেসবিফিং-এ সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান এসব কথা জানান। 

পুলিশ সুপার বলেন, দেবহাটা উপজেলার টিকেট গ্রামের শান্তিরঞ্জন দাসের মেয়ে গাভা একেএম আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী পূর্ণিমা দাসকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ শেষে গলায় ক্যাবল পেঁচিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠে তার প্রেমিক একই গ্রামের একই গ্রামের শিবপদ মন্ডলের ছেলে প্যারা মেডিক্যালে অধ্যয়নরত ছাত্র পার্থ মন্ডলের বিরুদ্ধে। 

রও পড়ুন:


কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

বিয়ের আগেই পাত্রের মাকে নিয়ে পালিয়ে গেল পাত্রীর বাবা!

বিশ্বকাপের আগে কোহলিকে স্বস্তি দিলেন অশ্বিন

ইংরেজি শেখার জন্য বিয়ে করেছিলেন শেবাগ-যুবরাজ-হরভজন!!


শুক্রবার সকালে বাড়ির পাশের একটি পরিত্যক্ত বাড়ির সবজি বাগান থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওইদিন রাতে পূর্ণিমার বাবা শান্তি রঞ্জন দাস উপজেলার দেবহাটা থানায় পার্থকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। এ ঘটনায় একমাত্র আসামি ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শনিবার রাতে পার্থ মণ্ডলকে সদর উপজেলার বৈকারী সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার করে। 

পূর্ণিমা দাসের সঙ্গে পার্থ মণ্ডলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এক বছর আগে পূর্ণিমাকে বিয়ের জন্য পার্থ মন্ডল প্রস্তাব দেয়। এতে পূর্ণিমার বাবা শান্তি রঞ্জন দাস রাজি না হওয়ায় পূর্নিমা তাকে এড়িয়ে চলত। এতে পার্থ ক্ষিপ্ত হয়ে পরিকল্পনা সুযোগ বুঝে তাকে ধর্ষণ শেষে হত্যা করে বলে জানান পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান।

এদিকে স্কুল ছাত্রী পূর্ণিমা হত্যার ঘটনায় খুনি পার্থ মণ্ডলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে দেবহাটা উপজেলার গাভা একেএম আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শত শত এলাকাবাসী। রোববার সকাল ১১ টার সময় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। 

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর